কাগজে কলমের হিসেবে সময়টা ৫৭ দিন। বলা যায়, বাংলাদেশ ক্রিকেটের দিন বদলের ৫৭ দিন। প্রথমে দু’সপ্তাহের কন্ডিশনিং ক্যাম্প। এরপর চারটা প্রস্তুতি ম্যাচ ও বিশ্বকাপের মূল পর্ব। বিশ্বকাপের আগে যা মোটামুটি অভাবনীয়ই ছিল সেটাই সত্য হয়ে গেছে এই ৫৭ দিনে।

অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের বি রুদ্ধ কন্ডিশনে খেলে দাপট দেখিয়ে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল চলে গেছে কোয়ার্টার ফাইনালে। শেষ আটে ভারতের সাথে মেলবোর্নে বাজে আম্পায়ারিংয়ে স্বপ্ন চুরি হলেও বাকি সময়টা সত্যিই স্বপ্নের মত ছিল তামিম-সাকিব-মুশফিক-রিয়াদদের জন্য। আর সেই ইতিহাস যাত্রা শেষে রবিবার দেশে পৌঁছেছে দলটি।cric1

শাহজালাল বিমানবন্দরে সন্ধ্যা সাতটা ৪৪ মিনিটে দেশে পৌছায় তারা। কোয়ার্টার ফাইনালে ছিটকে পড়লেও এবারের আসরে দারুণ পারফর্মেন্স করেছে মাশরাফি বিন মর্তুজা নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দল। তাতেই খুশী সমর্থকরা। তাই তাদের আগমনে নতুন সাজে সেজেছে বিমানবন্দর এলাকা। হাজার হাজার সমর্থকরা বিভিন্ন ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে প্রিয় দলকে শুভেচ্ছা জানাতে সেখানে অবস্থান করছে।

এর আগে বিশ্বকাপে আফগানিস্তান, স্কটল্যান্ড ও ইংল্যান্ডকে পরাজিত করে কোয়ার্টার ফাইনালে সুযোগ পায় বাংলাদেশ। কিন্তু কোয়ার্টার ফাইনালে পরাজিত হয় ভারতের কাছে।

গোটা দল ফেরার একদিন আগেই চলে এসেছেন সাকিব আল হাসান। বিগ ব্যাশ টি-টোয়েন্টি লিগের খেলার জন্য বাংলাদেশ দলের আগেই অস্ট্রেলিয়া চলে গিয়েছিলেন তিনি। সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনসে ফিরতি টিকেটটা কাটা হয়ে গিয়েছিল তখনই। সেই টিকেটের বিমানেই গত রাতে দেশে চলে আসেন সাকিব। সাথে ছিলেন স্ত্রী শিশির। একই দিনে দেশে এসেছেন কাঁধের ইনজুরিতে থাকা ওপেনার এনামুল হক বিজয়।

দল ফিরে আসলেও, ছুটিতে আছেন কোচিং স্টাফ দলের সদস্যরা। কোচ চান্দিকা হাতুরুসিংহে ও ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারায়েন অস্ট্রেলিয়ায় থেকে গেছেন। দুবাই পর্যন্ত দলের সঙ্গে এসে ফিল্ডিং কোচ রিচার্ড হ্যালসল গেছেন লন্ডন। আর বোলিং কোচ হিথ স্ট্রিক জিম্বাবুয়ের বুলাওয়ে এবং সহকারী কোচ রুয়ান কালপাগে শ্রীলঙ্কার কলম্বোতে চলে গেছেন।