পাকিস্তানকে ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করার পর একমাত্র টি-টোয়েন্টিতে জেতার মাসও পেরোয়নি। এবার বাংলার টাইগারদের সামনে ভারত। বিশ্বকাপের পর পাকিস্তান সিরিজেও দুর্দান্ত ব্যাট করেছেন নতুন বাংলাদেশ দলের অন্যতম তরুণ তুর্কি সৌম্য সরকার। পাকিস্তানের বিপক্ষে শেষ ওয়ানডেতে খেলেছিলেন অপরাজিত ১২৭ রানের ইনিংস। সব মিলিয়ে আত্ম্ববিশ্বাসে টগবগ করছেন সাতক্ষীরার এই তরুণ। শনিবার অনুশীলন শেষে সংবাদ মাধ্যমকে বলে দিলেন, ভারতের বিপক্ষেও বাংলাদেশই ফেভারিট।

ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সৌম্য সরকারের সহজাত আক্রমণাত্মক ব্যাটিং মানানসই। তবে টেস্ট মেজাজের ব্যাটিংয়ের জন্য দীর্ঘ পথ পাড়ি দিতে হবে এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যানকে। প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে মাত্র একটি সেঞ্চুরি তার। তাও সেই সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন গত সপ্তাহে, বিসিএলের অঘোষিত ফাইনালে।  ভারতের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের আগে তাই নিজের ব্যাটিং নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন তিনি।
পাকিস্তানের বিপক্ষে খুলনা টেস্টে অভিষেক হয় সৌম্যর। দুই ইনিংসেই ৩৩ রান করে আসে তার ব্যাট থেকে। ঢাকায় পরের টেস্টে ৩ ও ১ রানে ফিরেন তিনি।
“প্রথম টেস্টে আমি দুই ইনিংসেই থিতু হয়ে আউট হয়ে গেছি। দ্বিতীয় টেস্টে ভালো করতে পারিনি, থিতু হতে পারিনি। টেস্ট যেভাবে খেলে, ওইভাবে মানসিকভাবে ‘ফিট’ হওয়ার জন্য অনুশীলন করছি। বল ছাড়তে হবে, টিকে থাকতে হবে, এটা নিয়ে কাজ করা শুরু করেছি।”
বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) তৃতীয় রাউন্ডে দক্ষিণাঞ্চলের হয়ে খেলেন সৌম্য। প্রথম ইনিংসে শূন্য রানে আউট হলে দ্বিতীয় ইনিংসে ১২৭ রান করেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।
“চেষ্টা করছিলাম নিজের ব্যাটিংটা যেন ভালোভাবে করতে পারি। চেষ্টা করছিলাম, প্রথম ইনিংসে ভালো করতে পারি নি। দ্বিতীয় ইনিংসে সেটা করতে পেরেছি।”
একটি টেস্ট ও তিনটি ওয়ানডে খেলতে আগামী ৭ জুন বাংলাদেশে পৌঁছাবে ভারতের ক্রিকেট দল। প্রতিপক্ষকে নিয়ে এখনও ভাবছেন না সৌম্য, তবে তাদের স্পিনারদের মোকাবেলায় কাজ করার ইচ্ছে আছে বলে জানান এই তরুণ।
২২ বছর বয়সী সৌম্য মনে করেন, পাকিস্তান সিরিজে ভালো খেলার ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারলে ভারতের বিপক্ষেও ভালো করবে বাংলাদেশ। ছন্দে থাকা ভারত দলকে সমীহ করলেও তাদের মোটেও ভয় পাচ্ছেন না তিনি।