বিশ্বসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন লংকান গ্রেট কুমার সাঙ্গাকারা

0
150

যোগ্য হাতেই উঠল সেরার স্বীকৃতি। ক্রিকেটের সবচেয়ে প্রাচীন ও বিখ্যাত প্রকাশনা উইজডেন ক্রিকেটার্স আলমানাকের ২০১৫ সালের সংস্করণে গত বছরের বিশ্বসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন লংকান গ্রেট কুমার সাঙ্গাকারা। ১৫২তম সংস্করণে প্রথমবারের মতো বর্ষসেরা মহিলা ক্রিকেটার নির্বাচিত করেছে উইজডেন। পুরস্কারটি জিতেছেন অস্ট্রেলিয়ার মেগ ল্যানিং। ১৮৬৪ সাল থেকে প্রতিবছর একটি করে সংস্করণ প্রকাশ করে আসছে ক্রিকেটের বাইবেল খ্যাত ইংলিশ ম্যাগাজিনটি। বীরেন্দর সেহওয়াগ ও সাঙ্গাকারাই শুধু একাধিকবার উইজডেনের বর্ষসেরার স্বীকৃতি পেয়েছেন।

ক্যারিয়ারের গোধূলিলগ্নে দাঁড়িয়েও সাঙ্গাকারার ব্যাটে যে মধ্যাহ্নের তেজ, তাতে ২০১৪ সালের সেরা ক্রিকেটার বেছে নিতে কোনো সমস্যা হয়নি উইজডেনের বিচারকদের। তিন ফরম্যাট মিলিয়ে এক পঞ্জিকাবর্ষে সাঙ্গাকারার ব্যাট থেকে এসেছে রেকর্ড ২৮৬৮ রান। গত বছর ঢাকায় টি ২০ বিশ্বকাপ জিতে ক্রিকেটের ক্ষুদে সংস্করণকে বিদায় জানিয়েছেন ৩৭ বছর বয়সী এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান। ফাইনালে পেয়েছেন ম্যাচসেরার স্বীকৃতি। লর্ডসে প্রথমবারের মতো টেস্ট সেঞ্চুরি পেয়েছেন গত মৌসুমে। ইংল্যান্ডের মাটিতে শ্রীলংকার টেস্ট সিরিজ জয়ে বড় অবদান ছিল সাঙ্গাকারার। ২০১৫ বিশ্বকাপে তার টানা চার সেঞ্চুরির বিশ্বরেকর্ড প্রমাণ করে সাঙ্গাকারাকে বেছে নিয়ে ভুল করেনি উইজডেন।

বিশ্বকাপ দিয়ে ওয়ানডে ছেড়েছেন। টেস্ট ক্যারিয়ারেরও ইতি টানবেন এ বছর। সাঙ্গাকারাকে কুর্নিশ জানিয়ে উইজডেন সম্পাদক লরেন্স বুথ লিখেছেন, ‘তাকে বেছে নেয়া খুব সহজ ছিল। বিশ্বকাপে তার টানা চার সেঞ্চুরি নিশ্চিত করেছে, সঠিক ব্যক্তিকেই আমরা বেছে নিয়েছি। চূড়ান্ত অবসরের পর আমরা সবাই তাকে মিস করব।’ সাঙ্গাকারার প্রশংসা করলেও ইংলিশ ক্রিকেটের দুর্গতির জন্য ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডকে ধুয়ে দিয়েছেন বুথ। কেভিন পিটারসেনকে যেভাবে দল থেকে বাদ দেয়া হয়েছে, সেটা মেনে নিতে পারেননি উইজডেন সম্পাদক। ঐতিহ্য অনুযায়ী ইংলিশ মৌসুমের পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে বছরের সেরা পাঁচজন ক্রিকেটার বেছে নেয়া হয়েছে। এই তালিকায় শ্রীলংকা অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস এবং ইংল্যান্ডের মঈন আলী ও গ্যারি ব্যালান্সের সঙ্গে আছেন দুই কাউন্টি তারকা অ্যাডাথ লিথ ও জিতান প্যাটেল। এএফপি/ওয়েবসাইট।