বিশ্বকাপের পরই ওয়ানডে ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন পাকিস্তানের দুই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার মিসবাহ-উল-হক ও শহীদ আফ্রিদি। বাংলাদেশে আসা দলে অভিজ্ঞ বলতে সাঈদ আজমল ও মোহাম্মদ হাফিজ। দু’জনের কেউই ছিলেন না বিশ্বকাপে। কোচ ওয়াকার ইউনুসের ধারণা তারুণ্যনির্ভর এই দলটাই বাংলাদেশের বিপক্ষে ভালো করবে। তবে বাংলাদেশকে ফেভারিট মানছেন তিনি।

ওয়াকার বলেন, ‘সব সময়ই তরুণদের দলে দেখাটা দারুণ ব্যাপার। পাকিস্তান খুব ভাগ্যবান যে আমরা সব সময়ই দারুণ কিছু মেধাবী খেলোয়াড় পেয়ে যাই। আমরা সেটা আগামী কয়েক দিনে এবং টেস্ট ম্যাচগুলোয় দেখতে পারব। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ অনেক উন্নতি করেছে এতে কোনো সন্দেহ নেই। এখন তারা অনেক অভিজ্ঞ দল।’ নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফিরেছেন আজমল। তার কাছ থেকে কতটুকু আশা করছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘গত কয়েক মাসে সে নিজেকে প্রমাণ করেছে, এখনও ভালো করছে। এ কারণেই তিন ফরম্যাটেই তাকে আমরা নিয়েছি। গতকালও (প্রস্তুতি ম্যাচে) সে ভালো বোলিং করেছে। দীর্ঘদিন পর এটাই ছিল তার প্রথম ৫০ ওভারের ম্যাচ। তার অভিজ্ঞতা এবং দক্ষতা ভালো করার ক্ষেত্রে সহায়ক হবে বলে মনে করি।’

ওয়ানডেতে মাত্র একবারই বাংলাদেশের কাছে হেরেছে পাকিস্তান। সেটা ১৯৯৯ বিশ্বকাপে। ওই ম্যাচে খেলেছিলেন ওয়াকার ইউনুসও। এখন তিনি দলের কোচ। সেই ম্যাচ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘আমরা অনেক ভালো দল ছিলাম কিন্তু নির্দিষ্ট সেই দিনটাতে আমাদের চেয়েও ভালো ছিল বাংলাদেশ। তারপর থেকে আমরা অনেক সাফল্য পেয়েছি। বিশ্বকাপের আগেই বাংলাদেশ একটি পরিণত দল। অনেক ভালো ফল পেয়েছে তারা। আমরা তাদের কোনোভাবেই হালকাভাবে নিচ্ছি না।’ তিনি বলেন, ‘অবশ্যই বাংলাদেশ ফেভারিট। আমরা খুবই তরুণ একটি দল। আমরা অন্তর্বর্তীকালীন একটি সময়ে আছি। কিন্তু আমাদের কোনো ঘাটতি নেই। ম্যাচজয়ী খেলোয়াড় আছে আমাদের।’