টাইগারদের দৃঢ়তায় শেষ পর্যন্ত ড্র হল বাংলাদেশ-পাকিস্তান প্রথম টেস্ট ম্যাচ। ম্যাচ ড্র হলেও এ ম্যাচে বাংলাদেশের প্রাপ্তি অনেক। তামিমের ডাবল সেঞ্চুরি, উদ্বোধনী জুটির বিশ্বরেকর্ড আর তাইজুলের ৬ উইকেট প্রাপ্তি। এসব কৃর্তির কারণে ঢাকা পড়েছে পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ হাফিজের ডাবল সেঞ্চুরি। আর কী চাই!

শনিবার খুলনার শেখ আবু নসের স্টেডিয়ামে ৫ম দিনে বাংলাদেশ তাদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৬ উইকেটে ৫৫৫ রান সংগ্রহ করলে ম্যাচটি ড্র হয়। সাকিব আল হাসান ৭৬ এবং শুভাগত হোম ২০ রানে অপরাজিত ছিলেন।

এর আগে দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে ডাবল সেঞ্চুরি করেন ওপেনার তামিম ইকবাল। ক্যারিয়ার সেরা ২০৬ রান করে আউট হন তিনি। আরেক ওপেনার ইমরুল কায়েস করেন ১৫০ রান।

তাদের জুটিতে আসে ৩১২ রান। রেকর্ড করা উদ্বোধনী জুটির পর মুমিনুল দ্রুত বিদায় নেন। মাত্র ২১ রান করে আউট হন প্রথম ইনিংসে সর্বোচ্চ সংগ্রহকারী মুমিনুল। এছাড়া মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ৪০ এবং সৌম্য সরকার ৩১ রান করে আউট হন। অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম কোনো রান করতে পারেননি। পাকিস্তানের পক্ষে হাফিজ ও জুনায়েদ ২টি এবং বাবর ও শফিক ১টি করে উইকেট লাভ করেন।

বাংলাদেশ তাদের প্রথম ইনিংসে করে ৩৩২ রান। জবাবে পাকিস্তান তাদের প্রথম ইনিংসে করে ৬২৮ রান। হাফিজ করেন ২২৪ রান। তবে অসাধারণ এক ইনিংস উপহার দেয়ায় তামিম ইকবালকে ম্যান অব দ্যা ম্যাচের পুরস্কার দেয়া হয়।

আগামী ৬ মে দুদলের মধ্যে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট মিরপুরে অনুষ্ঠিত হবে।