বাড়তি মেদ শরীর থেকে ঝেরে ফেলতে নিয়মিত ডায়েটের ওষুধ খাওয়া শুরু করেছিলেন ল্যান্স ফার্গুসন প্রেয়গ। কোনও ডাক্তারের পরামর্শে নয়, ইন্টারনেট দেখে সেই ডায়েট পিল কিনেছিলেন প্রতিশ্রুতিমান ওই বক্সার। পরিণতি- বক্সিং রিং থেকে উঠে হার্টফেল। ডাক্তাররা জানিয়েছেন, ডায়েট ট্যাবলেট খাওয়ার কারণেই ওই বক্সারের অকালে মৃত্যু হয়েছে।

বয়স মাত্রই ৩৩ বছর। মৃত্যুর আগে লভারপুলের এই বক্সার ইন্টারন্যাশনাল বক্সিং অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিযোগিতায় মিডিলওয়েটে ষষ্ঠ হয়েছিলেন। ঘটনার দিন স্থানীয় নৈশক্লাবে বক্সিংয়ের অনুমোদনহীন একটি লড়াইয়ে নেমেছিলেন। রিং থেকে উঠে অসুস্থ বোধ করেন ল্যান্স ফার্গুসন। রিং-এর বাইরে বেরিয়ে চেয়ারে বসে পড়েন।তড়িঘড়ি হাসপাতালে ভর্তি করা হলে, সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। ডাক্তাররা জানান, না-জেনেই শরীরের পক্ষে মারাত্মক ক্ষতিকারক টি-৫ ট্যাবলেট খাচ্ছিলেন এই তরুণ বক্সার। বাড়তি মেদ ঝরাতেই ইন্টারনেট দেখে ওই খাওয়া শুরু করেছিলেন। ডাক্তারদের দাবি, টি-৫ শরীরের পক্ষে মারাত্মক ক্ষতিকারক। ফ্যাট ভেঙে অ্যাসিড তৈরি করে। এতে কিডনিরও ভালোরকম ক্ষতি হয়।
ইন্টারপোল চলতি সপ্তাহেই রোগা হওয়ার জন্য ইন্টারনেটের মাধ্যমে দেদার বিকোনো ডিনিট্রোফেনল (ডিএনপি)ওষুধের ওপর বিশ্বব্যাপী সতর্কতা জারি করে।এর মধ্যেই এই দুর্ঘটনা।এটা অনেকটা হলুদের মতো দেখেতে। এই ডিনিট্রোফেনল কীটনাশক হিসেবে ব্যবহার হয়ে থাকে।