স্প্যানিশ লা লিগার পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে এখন সেভিয়া
স্প্যানিশ লা লিগার পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে এখন সেভিয়া

স্প্যানিশ লা লিগার পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে এখন সেভিয়া। কাল সেল্টা ভিগোকে ২-১ গোলে হারিয়ে শীর্ষে উঠে গেছে তারা। অবশ্য সেভিয়ার শীর্ষস্থান প্রাপ্তিতে বার্সেলোনার অবদান কম নয়। ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র করে লিগে আরও একটি হোঁচট খেয়েছে তারা। এ নিয়ে লিগে টানা চারটি ম্যাচে জয়হীন বার্সা। একটিতে দেখতে হয়েছে হারের মুখও।

৮ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে সেভিয়া। সমানসংখ্যক ম্যাচে বার্সার পয়েন্ট ১৫। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ কাল রিয়াল বেটিসকে হারিয়ে বার্সার সঙ্গে পয়েন্ট সমান করে ফেলেছে। যদিও গোলগড়ে অ্যাটলেটিকো আছে তৃতীয় স্থানে। রিয়াল মাদ্রিদের অবস্থান চতুর্থ।

কাল ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই পিছিয়ে গিয়েছিল বার্সেলোনা। ভ্যালেন্সিয়ার মাঠ মেস্তায়ায় তাই অশনিসংকেতই বেজে উঠেছিল বার্সার জন্য। গোলটির জন্য জেরার্ড পিকেকে কিছুটা হলেও দায়ী করা যেতে পারে। ভ্যালেন্সিয়ার পারেজো কর্নার হেড করে ঠিকমতো ক্লিয়ার করতে পারেননি পিকে। বল এজেকুয়েল গারাই পেয়ে গেলে গোলের খুব কাছ থেক লক্ষ্যভেদ করতে ভুল করেননি তিনি। ৬ মিনিটে ভ্যালেন্সিয়া আরও এক গোল এগিয়ে যেতে পারত। কিন্তু গামেইরোর পাস থেকে বল ধরে বাতশুয়াইয়ের দুর্বল শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

বার্সেলোনা মরিয়া হয়ে এরপর চেষ্টা চালাতে থাকে। ২১ মিনিটে সুযোগ নষ্ট করেন লিওনেল মেসি। পরের মিনিটেই লুইস সুয়ারেজ ভ্যালেন্সিয়ার বক্সে পড়ে গেলে পেনাল্টির দাবি ওঠে, সে দাবিতে অবশ্য কান দেননি রেফারি। ২৩ মিনিটে গোল শোধ করে বার্সা, শোধ করেন মেসি। সুয়ারেজের সঙ্গে ওয়ান টু ওয়ান খেলে বক্সের সামনে থেকে বাঁ পায়ের নিটু শটে ভ্যালেন্সিয়া গোলরক্ষকে পরাস্ত করেন তিনি।

ভ্যালেন্সিয়া আরও একটি সুযোগ নষ্ট করে ম্যাচের ৪০ মিনিটে। গামেইরোর শট সেমেদো ব্লক করলে ফিরতি বলে বাইরে শট নেন গায়া। বিরতির পর বার্সেলোনার ফিলিপে কুতিনহো চেষ্টা বাধা পায়। ৭২ মিনিটে প্রাপ্ত ফ্রি কিক ক্রসবারের ওপর দিয়ে মেরে দেন মেসি। ম্যাচের শেষ দিকে বলার মতো খুব বেশি আক্রমণ করতে পারেনি বার্সা। শেষ পর্যন্ত আরও একটি ড্রই সঙ্গী হয় তাঁদের।

ম্যাচ শেষে নিজেদের ব্যর্থতাই আড়াল করতে চেয়েছেন বার্সেলোনা কোচ ভালভার্দে, ‘আমরা যখন জিততে পারি না, তখন আমরা ভাবি যে দুই পয়েন্ট হারালাম। মেসি গোল শোধ করার পর আমরা আমারদের সর্বশক্তি নিয়েই ঝাঁপিয়ে পড়েছিলাম। কিন্তু ভ্যালেন্সিয়ার রক্ষণ দুর্দান্ত খেলেছে। আমরা গোলটাই কেবল পাইনি।’

বার্সেলোনাকে রুখে দিয়ে ভ্যালেন্সিয়া এই মুহূর্তে টানা ছয় ম্যাচ অপরাজিত। দলের পারফরম্যান্সে তৃপ্ত হওয়ার মতো অনেক কিছুই খুঁজে পাচ্ছেন কোচ মার্সেলিনো, ‘পুরো ম্যাচে আমরা বার্সেলোনাকে কোনো সুযোগ দিইনি। এর মানে এই যে আমরা ম্যাচটিতে দারুণ পরিশ্রম করে খেলেছি।’