মাঝ দরিয়ায় ভাসমান অবৈধ বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গা অভিবাসীদের জন্য নিজেদের জলসীমা নিষিদ্ধ করলেও পরে মানবিক কারণে তাদের আশ্রয় দিতে রাজি হয়েছে মালয়েশিয়া। শুধু তা-ই নয় এবার সেখানকার রেস্টুরেন্ট মালিক সমিতি তাদের চাকরি দেয়ারও প্রস্তাব দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার মালয়েশীয় দৈনিক দ্য স্টারে এমন খবর প্রকাশ করা হয়েছে। দ্য মালয়েশিয়ান ইন্ডিয়ান মুসলিম রেস্টুরেন্ট ওনার অ্যাসোসিয়েশনের (Presma) পক্ষ থেকে এ প্রস্তাব দেয়া হয়েছে বলে ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

সমিতির সভাপতি নুরুল হাসান সাউল হামিদের উদ্ধৃতি দিয়ে পত্রিকাটি বলেছে, তাদের এ প্রস্তাব মালয়েশিয়া সরকারের নীতির সঙ্গে সাংঘর্ষিক নয়। যেখানে সরকার সাগরে ভাসমান অবৈধ অভিবাসীদের অস্থায়ী আশ্রয় দিতে রাজি হয়েছে।

নুরুল হাসান বলেন, ‘আমরা তাদের জন্য সহায়তার হাত আরেকটু প্রসারিত করতে চাই। এরা আমাদেরই ভাই-বোন।’

সমিতির অনেক সদস্য এই বিপদগ্রস্ত মানুষদের নিজ পায়ে দাঁড়ানোর মতো ব্যবস্থা করে দিতেও ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

নুরুল হাসান বলেন, ‘আমরা সরকার বা আমাদের সদস্যদের এ ব্যাপারে কোনোভাবেই চাপ দিচ্ছি না। আমরা একেবারেই মানবিক কারণে এ প্রস্তাব দিয়েছি। আর আমাদের সদস্যরাও স্বেচ্ছায় এ ব্যাপারে রাজি হয়েছেন। আমাদের বুঝতে হবে- যদি তাদের আমাদের উপকূলে অবতরণ করার অনুমতি দেয়া হয় তাহলে তাদের ও পরিবারের রুজির বিষয়টা থেকেই যাচ্ছে। যদি তারা কাজ পায় তাহলে তাদের নানা সামাজিক সমস্যা এবং অপরাধের সঙ্গে তাদের জড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা অনেকখানি কমবে।’

উল্লেখ্য, বর্তমানে মালয়েশিয়ার অবৈধ অভিবাসী আশ্রয়কেন্দ্রে ৬০৩ জন বাংলাদেশি রয়েছেন। গতকাল বুধবার মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়া সাগরে ভাসমান সাত হাজার অবৈধ অভিবাসীকে সাময়িক আশ্রয় দিতে রাজি হয়েছে।