লন্ডনে সন্ত্রাসী হামলায় তিন সন্দেহভাজন হামলাকারীসহ মোট ৯ জন নিহত হয়েছেন। খবর বিবিসির।  রবিবার (৪ জুন) বাংলাদেশ সময় ভোর পৌনে ৪টার দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর লন্ডন ব্রিজে গাড়ি চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ছুটির রাতে লন্ডন ব্রিজের কাছে একই সঙ্গে দুই জায়গায় এই হামলা চালানোর খবর পাওয়া যায়।

জানা গেছে, একটি ভ্যান ৫০ কিলোমিটার গতিতে ব্রিজে পথচারীদের ওপর আঘাত হানে। সেটি ব্রিজ থেকে দ্রুত বেগে দক্ষিণ দিকে যাচ্ছিল। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে কয়েকজন হতাহত হন।  একইসাথে নিকটবর্তী বোরো মার্কেটের ক্যাফেতে থাকা আরেকজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, ব্রিজের দক্ষিণ দিকে বোরো মার্কেটে একজন মানুষ ছুরি নিয়ে প্রবেশ করেন এবং দুজনকে ছুরিকাঘাত করেন। এ সময় খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে অবস্থান নেয়।

ম্যানচেস্টারে হামলার রেশ না কাটতেই নির্বাচনের মাত্র চার দিন আগে এমন হামলার ঘটনা ঘটল। গত মাসে ম্যানচেস্টার অ্যারেনায় মার্কিন গায়িকা আরিয়ানা গ্রান্ডের কনসার্টে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে ২২ জন নিহত হন। পরে এ মর্মান্তিক আত্মঘাতী হামলার দায় স্বীকার করে নেয় আন্তর্জাতিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)। এ ছাড়া গত মার্চে ব্রিটিশ পার্লামেন্ট ভবনের বাইরে অধিবেশন চল‍াকালীন সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। যা নিয়ে পুরো বিশ্বে তোলপাড় লেগে যায়। ওই হামলায় পুলিশ কর্মকর্তাসহ তিনজন নিহত হন।

পুলিশের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে, স্থানীয় সময় রাত ১০টার দিকে লন্ডন ব্রিজে ভিড়ের মধ্যে একটি ভ্যান চালিয়ে দেয় তিন হামলাকারী। এর পরপরই তারা নিকটবর্তী বোরো মার্কেট এলাকায় ছুরি হাতে সাধারণ মানুষের ওপর হামলা চালায়। সেখানে তিন হামলাকারী পুলিশের গুলিতে নিহত হয় বলে ব্রিটিশ পুলিশের সন্ত্রাসবিরোধী ইউনিটের প্রধান মার্ক রাউলি জানিয়েছেন।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে বলেন, লন্ডনের ভয়ানক ঘটনাটি সম্ভাব্য সন্ত্রাসী কার্যক্রম হিসেবে দেখা হচ্ছে। এ নিয়ে সরকারের শীর্ষ নিরাপত্তা পরমর্শকদের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসবেন তিনি।