যেসব রেকর্ডের দুয়ারে দাঁড়িয়ে টাইগাররা, দৃষ্টি ২২ নভেম্বর
যেসব রেকর্ডের দুয়ারে দাঁড়িয়ে টাইগাররা, দৃষ্টি ২২ নভেম্বর

সদ্য সমাপ্ত জিম্বাবুয়ে টেস্টে সিরিজে ২১৯ রানের বিশাল ব্যবধানে জইয়লাভ করে চাঙ্গা বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

২২ নভেম্বর চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হবে মুশফিক বাহিনী।

যদিও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে হেরে যায় মাহমুদুল্লাহরা।

তবে শেষ টেস্টে তাইজুল ও মিরাজের ঘূর্ণি আর মিস্টার ডিপেন্ডেবলের অনবদ্য ডাবল সেঞ্চুরিতে বাঘের গর্জন শোনে মিরপুরে ক্রিকেট গ্রাউন্ড।

সেই টেস্টে একগাদা রেকর্ড গড়েছেন মুশফিকুর রহিম, তাইজুল ইসলাম, মুমিনুল হক, মেহেদি হাসান মিরাজরা।

এবার বেশ কিছু রেকর্ড ও মাইলফলকের সামনে দাঁড়িয়ে আছেন তারা।

এরসঙ্গে যোগ দিয়েছেন হাতের ইঞ্জুরি কাটিয়ে দলে ফেরা সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

যেসব রেকর্ডের সামনে দাঁড়িয়ে টাইগাররা:

সাকিব আল হাসান

ইঞ্জুরি কাটিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে নিজের সেরাটা দেখাতে মুখিয়ে আছেন অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। মাইলফলক ছুঁতে সাকিবের লাগবে মাত্র চার উইকেট।

৫৩ ম্যাচে ১৮ বার ৫ উইকেট নিয়ে সাকিবের বর্তমান উইকেট সংখ্যা ১৯৬।

আগামী ২২ নভেম্বর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষেই হয়ত সে মাইলফলক ছুঁয়ে ফেলবেন এ বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। প্রথম বাংলাদেশি টেস্ট ক্রিকেটার হিসেবে ২০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করবেন তিনি।

মুশফিকুর রহিম টেস্ট ক্রিকেটে চার হাজার রানের ক্লাবে নাম লিখাতে আর মাত্র ৩১ রানের প্রয়োজন মিস্টার ডিপেন্ডেবলের। তার ঝুলিতে চকচক করছে ৩৯৬৯ রান।

চট্টগ্রাম টেস্টে তামিমের নামের পাশে নিজের নাম লেখানো এখন শুধুমাত্র সময়ের ব্যাপার।

রানের সংখ্যা ৮১ তে নিতে পারলে তামিমকেও ছাড়িয়ে যাবেন মুশফিক। টেস্ট ফরম্যাটে বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হয়ে যাবেন তিনি।

আপাতত রানের চাকা বন্ধ হয়ে আছে ওপেনার তামিমের। ৪০৪৯ রানের মালিক তামিম ইকবাল পাঁজরের চোটে খেলছেন না চট্টগ্রাম টেস্ট।

শুধু রান দিয়েই নয়, বাউন্ডারির পরিসংখ্যানের দিকেও তাকিয়ে মুশফিকের ব্যাট। চট্টগ্রাম টেস্টে ২৪টি চার মারতে পারলে বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্ট ক্রিকেটে ৫০০ চারের মালিক হবেন তিনি।

যেখানে সর্বোচ্চ ৪৯৪টি চার মেরে প্রথম অবস্থানে আছেন তামিম।

তাইজুল ইসলাম

রেকর্ডের পর রেকর্ড করে যাচ্ছেন তাইজুল ইসলাম। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে দুর্দান্ত খেলেছেন এই ক্রিকেটার।

বল হাতে দুই টেস্টে ১৮ উইকেট শিকার করেছেন তাইজুল।

সিলেটের ঐতিহাসিক অভিষেক টেস্টের দুই ইনিংসে ৬ ও ৫ উইকেট নেয়ার পর ঢাকা টেস্টে প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট শিকার করেন তাইজুল।

টানা তিন ইনিংসে ৫ উইকেট শিকার করে সাকিব আল হাসান ও এনামুল হক জুনিয়রকে স্পর্শ করেন তাইজুল।

আসন্ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ টেস্টেও একটি মাইলফলকের সামনে দাঁড়িয়ে এই সময়ের সেরা স্পিনার।

চট্টগ্রাম টেস্টে ১৩ উইকেট শিকার করতে পারলে তৃতীয় বাংলাদেশি হিসেবে ১০০ উইকেটের ক্লাবে প্রবেশ করবেন তাইজুল।

তার বর্তমান উইকেট সংখ্যা ৮৭। তার সামনে রয়েছেন মোহাম্মদ রফিক (১০০) ও সাকিব আল হাসান (১৯৬)।

মুমিনুল হক ঘরের মাঠে বরাবরই লাকি মুমিনুল হক। ক্যারিয়ারের মোট ৭টি সেঞ্চুরি ৫টিই তিনি হাঁকিয়েছেন এই মাঠে। ২২ নভেম্বরে শুরু হতে যাওয়া টেস্টে ১৩১ রান করতে পারলে মুশফিকের পাশে নাম লিখাবেন এই বাংলাদেশি টেস্ট স্পেশালিস্ট।

দ্বিতীয় বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে চট্টগ্রামে ১০০০ রানের মাইলফলক স্পর্শ করবেন মুমিনুল। এ মাঠে মুশফিকের সংগ্রহ ১০৯২।