ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আনিসুল হক বলেছেন, ঢাকাকে সিঙ্গাপুরের মতো সুন্দর নগরী করা অসম্ভব নয়। এরজন্য দরকার শুধু পরিকল্পনা করে সেই মোতাবেক পথ চলা। এমন ঢাকা গড়ার প্রত্যাশায়ই আমি ডিসিসি নির্বাচনে অংশ নিয়েছি।

শনিবার ইস্ট-ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের কনফারেন্স রুমে বাংলাদেশ প্রতিদিন আয়োজিত ‘কেমন মেয়র হবো’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম।
তিনি বলেন, ‘ঢাকা একটা বড় কারখানার মতো, ছোট খাটো একটা রাষ্ট্রের মতো। এর প্রশাসনিক শাখা প্রশাখা ও কর্মগণ্ডি অনেক বড়। ৫৪টি সংস্থার সঙ্গে ডিসিসিকে সমন্বয় করতে হয়। তাই এটা চালাতে অভিজ্ঞ লোক দরকার। যে ব্যক্তি নগর উন্নয়নে সরকারের সঙ্গে সমঝোতা করতে পারবে, প্রয়োজনে লড়তেও পারবে তারই মেয়রের আসনে বসা উচিত। আমি মেয়র হলে নাগরিক উন্নত ঢাকা গড়তে যা করা দরকার তাই করব।’
আনিসুল হক বলেন, ডিসিসি মেয়রের হাতে জাদুর চেরাগ নেই। উল্টো যেটুকু চেরাগের আলো জ্বলছে তা নেভানোর মানুষ আছে। এসব বুঝেই ঢাকার মেয়রকে সামনে এগুতে হবে। সবচেয়ে বড় কথা ঢাকা নিয়ে মেয়রের একটা স্বপ্ন থাকতে হবে, সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের স্বদিচ্ছা থাকতে হবে। আমার সেই স্বপ্ন আছে। পরিকল্পনামাফিক এগুলো পাঁচ বছরের মধ্যে ঢাকার চেহারা বদলে ফেলা সম্ভব। আমি মেয়র হলে সেই চেষ্টাই করব।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত আছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র প্রার্থী তাবিথ আওয়াল, বাহাউদ্দিন আহমদ বাবুল, নাদের চৌধুরী, মোয়াজ্জেম হোসেন খান মজলিস, জোনায়েদ সাকি, মাওলানা ফজলে বারী মাসউদ, আবদুল্লাহ আল কাফী, গাজী মোহাম্মদ শহিদুল্লাহ, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র প্রার্থী সাঈদ খোকন, বজলুর রশীদ ফিরোজ, শহীদুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ ড. বদিউল আলম মজুমদার, স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন প্রমুখ।