ভ্যাট আইন বাস্তবায়নের আগেই বিশেষ ছাড় পাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। এখন থেকে ৩৬ লাখ টাকার নিচে বার্ষিক লেনদেনের ক্ষেত্রে আর ভ্যাট দিতে হবে না তাদের। এর আগে বার্ষিক এই লেনদেনের সীমা ছিল ২৪ লাখ টাকা।

রোববার (০৮ মার্চ) দুপুরে সচিবালয়ে এফবিসিসিআই সভাপতি কাজী আকরামউদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে ব্যবসায়ীদের একটি প্রতিনিধি দল অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বিশেষ এ ছাড়ের দাবি জানালে সম্মতি দেন তিনি।

বর্তমান আইনে যেসব ব্যবসায়ীদের বার্ষিক লেনদেন ২৪ লাখ টাকার বেশি, তাদের ভ্যাট প্রদান করতে হয়। বর্তমানে আইনটি সংশোধনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আর সংশোধন প্রস্তাবে বলা হয়েছে, যেসব ব্যবসায়ীদের বার্ষিক আয় ৩৬ লাখ টাকার উপরে, কেবল তাদের ভ্যাট দিতে হবে।

সংশোধন আনা আইনটি চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত যাদের বার্ষিক আয় ৩৬ লাখ টাকার নিচে, তাদের এখন থেকেই ভ্যাট প্রদানে ছাড় দেওয়ার দাবি জানায় এফবিসিসিআই। তাদের এ দাবির প্রেক্ষিতে করমুক্ত এই সীমা ৩৬ লাখ টাকা করার বিষয়ে সম্মতি দেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।

ভ্যাট আইনের সংশ্লিষ্ট ধারা সংশোধনে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) আপত্তির মুখেই আইন বাস্তবায়নের সাহস দেখালো সরকার। আর আইনটিও শিগগিরই সংশোধন করে নতুন আইন করা হবে।

বৈঠকের পর এফবিসিসিআই সভাপতি কাজী আকরামউদ্দিন আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, নতুন ভ্যাট আইনে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ভ্যাটমুক্ত সীমা করা হচ্ছে ৩৬ লাখ টাকা। আইন চূড়ান্ত হওয়ার আগেই এই প্রস্তাব বাস্তবায়নে অর্থমন্ত্রী সম্মতি দিয়েছেন।

ভ্যাট আইন সংশোধনে তাড়াহুড়ো না করার আহ্বান জানান এফবিসিসিআই সভাপতি কাজী আকরামউদ্দিন আহমেদ। তিনি বলেন, কোনো তাড়াহুড়ো না করে ধাপে ধাপে আইনটি সংশোধন করতে হবে।

তবে বৈঠকের পর অর্থমন্ত্রী এ বিষয়ে কোনো কথা বলেননি।

এর আগে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত ঢাকায় নিযুক্ত ইরানি রাষ্ট্রদূত আব্বাস ভেজি’র সঙ্গে বৈঠক করেন।

সুত্রঃbanglanews24