উত্তরপ্রদেশে বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ক্ষমতা নেয়ার পর বখাটেদের শায়েস্তা করতে যে রোমিও স্কোয়াড নামানো হয়েছে তার সমালোচনা করে এক টুইট করেন শীর্ষ আইনজীবী এবং রাজনীতিক প্রশান্ত ভূষণ। ওই টুইটে তিনি লেখেন, রোমিও তো শুধু একজন নারীকে ভালবাসত, কিন্তু (ভগবান) কৃষ্ণ তো লেজেন্ডারি ইভটিজার অর্থাৎ কিংবদন্তির নারী উত্ত্যক্তকারী ছিলেন।

বিবিসি জানায়, রোববার তার এই টুইটের সঙ্গে সঙ্গেই কট্টর হিন্দুদের কাছ থেকে সমালোচনা আর গালিগালাজের মুখে পড়েন প্রশান্ত। এরপর সোমবার দিল্লি বিজেপির মুখপাত্র তাজিন্দর পাল বাগ্গা পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন যে মি ভূষণ ভগবান কৃষ্ণের অপমান করেছেন এবং হিন্দুদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করেছেন। পুলিশ অভিযোগ নিয়েছে, কিন্তু এখনও এফআইআর করেনি।

চাপের মুখে প্রশান্ত ভূষণ এখন বলার চেষ্টা করছেন হিন্দু ধর্ম বা কৃষ্ণকে অপমান করার কোনো উদ্দেশ্য তার ছিল না। তিনি শুধু বলার চেষ্টা করেছেন যে, উত্তরপ্রদেশে যে যুক্তিতে রোমিও স্কোয়াড নামানো হয়েছে, সেই বিচারে কৃষ্ণকেও উত্ত্যক্তকারী মনে হতে পারে। টুইটারে তিনি লিখেছেন, তিনি নিজে ধর্মীয় আচার পালন না করলেও তার মা করেন এবং ছেলেবেলা থেকে তিনি ভগবান কৃষ্ণের গল্পগাথা শুনে বড় হয়েছেন। টুইটারে কৃষ্ণের একটি বাঁধানো ছবি পোস্ট করে প্রশান্ত লিখেছেন এই ছবি তাদের বাড়ির দেয়ালে টাঙানো রয়েছে।

উত্তরপ্রদেশে বখাটে দমনের যুক্তিতে পুলিশের রোমিও স্কোয়াড নিয়ে তরুণ ও যুবকদের মধ্যে চরম আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। মেয়েদের স্কুল-কলেজের সামনে, রাস্তার মোড়ে, বাজার-ঘাটে সন্দেহবশত তরুণ যুবকদের ধরে হেনস্থা করার অভিযোগ উঠেছে। এমনকি প্রেমিকা বা বান্ধবীর সামনেই অনেক তরুণকে কান ধরে ওঠবোস করানোর ঘটনাও ঘটেছে।