স্বাধীনতা দিবস আমাদের কাছে নিঃসন্দেহে বিশেষ একটি দিন। সরকারি ছুটির দিন বলে এই দিনটিতে ঘরে বাইরে সব জায়গাতেই উৎসবের আমেজ বিরাজ করে। এইদিনটিতে বাসার সবাই একসঙ্গে বসে দুপুরের অথবা রাতের খাবার খাওয়ার সুযোগ পাওয়া যায়। তাই এই সুযোগে সবাই চেষ্টা করেন একটু ভালো কিছু রেঁধে প্রিয়জনের পাতে তুলে দিতে। বিশেষ দিনের বিশেষ কিছু রান্না নিয়ে আজকের আয়োজন-

বিরিয়ানি

উপকরণ: গরুর মাংস হাড়সহ মাঝারি আকারে কাটা ২ কেজি, পোলাওয়ের চাল ১ কেজি, ঘি আধা কাপ, দই ২ কাপ, তেল পরিমাণমতো, আলু আধা কেজি, পেঁয়াজ মিহি করে বাটা ১ কাপ, আদা বাটা ৩ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ৪ টেবিল চামচ, জায়ফল, জয়ত্রী, এলাচ, দারুচিনি, গোলমরিচ, লবঙ্গ, শুকনা মচির এবং কাবাব কাটি ২ টুকরা (একসঙ্গে টেলে গুঁড়া করে নিন) লবণ স্বাদ অনুযায়ী, হলুদ রং সামান্য, গোলাপ জল ১ চা চামচ, আলুবোখরা ১০-১২টি, পানি পরিমাণমতো, মাওয়া গুঁড়া আধা কাপ।

প্রস্তুত প্রণালী: গরুর মাংস ভালো করে ধুয়ে নিন। এরপর মাংসে সব উপকরণ দিয়ে মাখিয়ে রাখুন ৩ ঘণ্টা। ঘিয়ে পেঁয়াজ বাদামি করে ভেজে রাখুন। আলুতে জরদার রং, সামান্য আদা, রসুন ও স্বাদ অনুযায়ী লবণ মাখিয়ে ভেজে রাখুন। একটি পাতিলে তেলও একসঙ্গে গরম করে এতে টুকরা পেঁয়াজ হালকা ভেজে নিন। পরে এতে মাখানো মাংস দিয়ে ভালো করে কষিয়ে পরিমাণমতো পানি দিয়ে ঢেকে রান্না করুন। মাংস ভুনা ভুনা হলে এতে একএকে কাঁচামরিচ, গরম মশলা গুঁড়া, গোলাপজল, মাওয়া গুঁড়া দিয়ে নামিয়ে রাখুন। এরপর রান্না করা মাংস পাতিল থেকে তুলে এতে ঝরানো চাল, সামান্য লবণ দিয়ে ভাজুন। চাল ভাজা হলে এতে পরিমাণমতো গরম পানি এবং কাঁচামরিচ ও সামান্য হলুদ রং গোলাপজলের সঙ্গে মিশিয়ে ঢেকে ১০ মিনিট মৃদু আঁচে রান্না করুন আরও ৫ মিনিট। পোলাও রান্না হলে অর্ধেক পোলাও তুলে এতে রান্না করা মাংস আর পোলাও এবং আলু বিছিয়ে ঢেকে ৫ মিনিট পরে নামিয়ে পরিবেশন করুন।