জার্মানিতে অনুষ্ঠিতব্য দুই দিনব্যাপী জি-৭ স্টেকহোল্ডার কনফারেন্সে যোগ দিতে সোমবার (০৯ মার্চ) জার্মানি যাচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

আগামী ১০ ও ১১ মার্চ জার্মানির বার্লিনে এ কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হবে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা আব্দুল লতিফ বকসী জানান, জার্মানির ফেডারেল মিনিস্টার ফর লেবার অ্যান্ড ওয়েলফেয়ার আনদ্রে নাহলেজ এবং ফেডারেল মিনিস্টার ফর ইকোনমিক কো-অপারেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ড. গার্ড মুলারের আমন্ত্রণে মন্ত্রী কনফারেন্সে যোগ দিতে যাচ্ছেন।

এ কনফারেন্সে বাণিজ্যমন্ত্রীর যোগদানের ফলে জি-৭ ভুক্ত দেশ সমূহের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক সহযোগিতার ক্ষেত্র আরও সম্প্রসারিত হবে বলে আশা করছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

জার্মানি বর্তমানে জি-৭ এর প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করছে। জার্মানি গ্লোবাল এনফোর্সমেন্ট অব সোস্যাল অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল স্ট্যান্ডার্ড বিষয়ে কাজ করতে গ্রাউন্ড ওয়ার্ক করার জন্য এ স্টেকহোল্ডার কনফারেন্সের আয়োজন করেছে। এক্ষেত্রে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ জরুরি। যেন তৈরি পোষাক শিল্পসহ রপ্তানি ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি না হয়।

জি-৭ এর বর্তমান সদস্য দেশগুলো হলো- ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, জাপান, যুক্তরাজ্য, যক্তরাষ্ট্র ও কানাডা। এছাড়াও ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন এ জোটভুক্ত।

কনফারেন্সে বাণিজ্যমন্ত্রী বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রা, সামাজিক ক্ষেত্রে প্রশংসনীয় উন্নয়ন, মাথাপিছু আয়বৃদ্ধি, রপ্তানি, রেমিটেন্স ও রিজার্ভ বৃদ্ধির বিষয় তুলে ধরবেন।

মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বাংলাদেশ এখন পৃথিবীর মধ্যে দ্বিতীয় বৃহত্তম তৈরি পোষাক রপ্তানিকারক দেশ। বাংলাদেশের রপ্তানি আয়ের প্রায় ৮০ ভাগ আসে তৈরি পোষাক রপ্তানি থেকে। প্রায় চার মিলিয়ন নারী পুরুষ এ শিল্পে কাজ করছে।

তৈরি পোষাকসহ বিভিন্ন শিল্পে শ্রমিকদের মজুরি, অধিকার নিশ্চিত করণ, ফায়ার সেফটি, বিল্ডিং সেফটিসহ কর্মবন্ধব ও নিরাপদ কর্মপরিবেশ উন্নয়নে বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ গুলো তুলে ধরবেন মন্ত্রী।

এতে করে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন, যুক্তরাষ্ট্রসহ ক্রেতাগোষ্ঠীকে বাংলাদেশের তৈরি পোষাক শিল্প সম্পর্কে একটি পরিষ্কার ধারণা দেওয়া সম্ভব হবে।

কনফারেন্সে যোগদান ছাড়াও ওমরা হজ পালন শেষে আগামী ১৬ মার্চ দেশে ফিরবেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

সুত্রঃbanglanews24