প্রধানমন্ত্রী খালেদার কান্নাকে বললেন অভিনয়

0
152

সিটি করপোরেশন নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। রোববার দুপুর ২টায় তার গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রায় এক ঘণ্টা বক্তব্য দেন বেগম জিয়া। স্বামী-সন্তানদের প্রসঙ্গ আসলে এক পর্যায়ে খালেদা জিয়াকে চোখ মুছতে দেখা গেছে।

ঢাকাবাসীর উদ্দেশে কথা বলতে গিয়ে খালেদা জিয়া বলেন, ‘আপনারা জানেন ক্ষমতার দম্ভে আমার সঙ্গে কী ধরনের ব্যবহার করা হয়েছে। দেশকে ভালোবেসে জনগণের কল্যাণে আমার স্বামী শহীদ রাষ্ট্রপতি জীবন দিয়েছেন, অল্প কিছু আগে আমার ছোট ছেলেকে চিরদিনের জন্য হারিয়েছি। একমাত্র জীবিত সন্তান অমানবিক নির্যাতনের শিকার হয়ে দূরদেশে চিকিৎসাধীন রয়েছে।’

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রীর কান্না সম্পর্কে বলেন, ‘বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেছেন, শেখ হাসিনা মানুষ মেরেও জিতেছেন, কেঁদেও জিতেছেন। এর সঙ্গে আমি একটু দ্বিমত করতে চাই। মানুষ মেরে যদি জেতার প্রশ্ন থাকে তাহলে তিনি জিততে পারেন। তবে তার কান্নাকে দেশের মানুষ অভিনয় মনে করে। তিনি যত বেশি অভিনয় করেন মানুষ তার থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয়।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, ‘শেখ হাসিনা ধরাকে সরা জ্ঞান করছেন, এই দম্ভ ত্যাগ করেন। মনে রাখবেন সবদিন সময় এক রকম যায় না। ক্ষমতায় বসে অনেক অপরাধ অপকৌশল করছেন। এখন রাষ্ট্র ক্ষমতা আপনার হাতে বাঘের হাতে সওয়ার মতো হয়েছে। নামতে ভয় পাচ্ছেন। আপনি ভয় পাবেন না। আমরা আপনাকে নিরাপদে নামতে সাহায্য করবো।’

নির্বাচনী প্রচারণায় নেমে যে হামলার শিকার হয়েছেন তার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সরকারের অন্যান্য মন্ত্রীদের দায়ী করেন খালেদা জিয়া।

কাওরান বাজারের হামলার ঘটনাকে সবচেয়ে মারাত্মক উল্লেখ করেন বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, ‘হত্যার জন্য সুপরিকল্পিতভাবে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, শ্রমিক লীগ এবং ছাত্রলীগ অংশ নেয়। হামলাকারীরা সাংবাদিকদের কাছে হামলার কথা শিকার করেছেন। ফকিরাপুলের হামলার সময় ঢাকা দক্ষিণের আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র উপস্থিত ছিলেন। যারা হামলা করেছে তাদের ঢাকা উত্তরের আওয়ামী সমর্থিত মেয়র প্রার্থী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রী এবং পুলিশের বিতর্কিত কর্মকর্তাদের সঙ্গে ছবিতে দেখা গেছে।’

হামলায় জড়িতরা এখনও পর্যন্ত আইনের আওতায় না আসায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

তার অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রী এবং মন্ত্রীদের উসকানিমূলক বক্তব্যে গাড়িবহরে হামলা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমি এতে ভয় পাই না। কারণ জীবন মৃত্যুর মালিক আল্লাহ রাব্বুল আলামিন। আমি বিশ্বাস করি আল্লাহ এ অন্যায়ের একদিন বিচার করবেন।’

ক্ষমতাসীনদের কঠোর সমালোচনা করে খালেদা জিয়া বলেন, ‘শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি মোকাবিলায় তারা ঘৃণ্য অপকৌশল গ্রহণ করেছে। দলীয় সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়েছে। রহস্যজনক বোমা হামলায় সাধারণ মানুষ নিহত এবং দ্বগ্ধ হয়েছে। অপরাধীরা কেন ধরা পড়েনি তা রহস্যে ঢাকা। তবে প্রতিটি ঘটনায় মিথ্যা মামলা দিয়ে বিএনপি নেতাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীদের আর্থিক পুরস্কার দেয়া হয়েছে। বিরোধী দলের বিরুদ্ধে অসত্য প্রচারণা চালানো হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা লাশের রাজনীতি করি না। সন্ত্রাসনির্ভর নষ্ট রাজনীতির চ্যাম্পিয়ন আওয়ামী লীগ। মানুষ হত্যা করে বিএনপির ওপর দায় চাপায়। সৌভাগ্যের বিষয় অপরাজনীতি দেশের মানুষকে বিভ্রান্ত করতে পারেনি। কারণ তারা আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসনির্ভর নষ্ট রাজনীতি দেখেছে।’