দীর্ঘ প্রায় দুই যুগ পরে পিতার চেয়ারে বসতে যাচ্ছেন অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের প্রয়াত মেয়র মোহাম্মদ হানিফের ছেলে সাঈদ খোকন।

মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত নানা অনিয়ম অভিযোগ ও বর্জনের মধ্যে ভোট অনুষ্ঠিত হয়। গণনা শেষে বুধবার ভোর ৫টা ২০ মিনিটের দিকে সাঈদ খোকনকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে বিজয়ী ঘোষণা করেন রিটার্নিং অফিসার মিহির সরোয়ার।

আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী সাঈদ খোকন ইলিশ মাছ প্রতীকে ৫ লাখ ৩৫ হাজার ২৯৬ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন বিএনপি সমর্থিত মির্জা আব্বাস। তিনি পেয়েছেন ২ লাখ ৯৪ হাজার ২৯১ ভোট। অবশ্য তার পক্ষে স্ত্রী আফরোজা আব্বাস মঙ্গলবার দুপুরের দিকে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন।

তবে যাই হোক, ২ লাখ ৪৫ হাজার ৫ ভোটের ব্যবধানে আব্বাসকে হারিয়ে জয়ের মুকুট পরলেন সাঈদ খোকনই। যে মুকুট মাথায় নিয়ে ১৯৯৪ সালে অবিভক্ত সিটি করপোরেশনের প্রথম মেয়র হিসেবে দায়িত্ব নেন তার বাবা মো. হানিফ। মেয়র হিসেবে তার সুনামও রয়েছে।

ফল ঘোষণার পর সাঈদ খোকন বাংলামেইলকে বলেন, ‘আমি যেভাবে ছিলাম, সেই সাঈদ খোকনই থাকবো। সিটি করপোরেশনের দরজা সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। এ প্রতিষ্ঠান সব সময় ঢাকাবাসীর সেবায় নিয়োজিত থাকবে।’

তিনি বলেন, ‘সুষ্ঠু, অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হয়েছে। এখন থেকে আমার প্রয়াত পিতা মোহাম্মদ হানিফ যেভাবে মানুষের জন্য সুখে-দুঃখে জীবন উৎসর্গ করে গেছেন, আমিও বাবার মতো মানুষের সুখে দুঃখে নিজেকে উৎসর্গ করবো।’

খোকন বলেন, ‘আমার প্রথম বছর হবে বাসযোগ্য ঢাকা গড়ে তোলার প্রত্যয়। দ্বিতীয় বছর থেকে মেয়াদকাল পর্যন্ত ঢাকাকে বিশ্বমানের নগরী গড়ে তোলার জন্য কাজ করবো। নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করার পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। সবুজের নগরী গড়ে তোলার চেষ্টা করা হবে। সমস্যা সমাধানে আমার কোনো ত্রুটি থাকবে না।’

এদিকে সাঈদ খোকন ও মির্জা আব্বাস ছাড়া অন্য ১৮ মেয়রপ্রার্থীদের মধ্যে- আবু নাছের মোহাম্মদ মাসুদ হোসাইন (চরকা) ২ হাজার ১৯৭, এ এস এম আকরাম (ক্রিকেট ব্যাট) ৬৮২, আয়ুব হোসেন (ঈগল) ৩৫৪, আসাদুজ্জামান রিপন (কমলা লেবু) ৯২৮, দিলীপ ভদ্র (হাতি) ৬৫৯, বাসদের বজলুর রশীদ ফিরোজ (টেবিল) ১ হাজার ২৯, মশিউর রহমান (চিতা বাঘ) ৫০৮, শফিউল্লাহ চৌধুরী (ময়ূর) ৫১২, জাতীয় পার্টির সাইফুদ্দিন মিলন (সোফা) ৪ হাজার ৫১৯ ভোট, সাংবাদিক মো. আকতারুজ্জামান ওরফে আয়াতুল্লাহ (লাউ) ৩৬২, আব্দুর রহমান (ফ্লাস্ক) ১৪ হাজার ৭৮৪, সাংবাদিক গোলাম মওলা রনি (আংটি) ১ হাজার ৮৮৭,   রেজাউল করিম চৌধুরী (টেবিল ঘড়ি) ২ হাজার ১৭৩, আব্দুল খালেক (কেক) ৫৫০, জাহিদুর রহমান (ল্যাপটপ) ৯৮৮ ও বাহরানে সুলতান বাহার (শার্ট) ৩১২, শাহীন খান (জাহাজ) ২ হাজার ৭৪ ও শহীদুল ইসলাম (বাস) ১ হাজার ২৩৯ ভোট পেয়েছেন।

৯৩টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন। এর মধ্যে ৫৭টি ওয়ার্ড রয়েছে দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে। এতে মোট ভোটার সংখ্যা ১৮ লাখ ৭০ হাজার ৭৫৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১০ লাখ ৯ হাজার ২৮৬ জন এবং নারী ভোটার রয়েছেন ৮ লাখ ৬১ হাজার ৪৬৭।