তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচন বয়কট করবেন, প্রত্যাখ্যান করবেন এটা খালেদা জিয়ার পূর্বপরিকল্পিত বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ।

মঙ্গলবার বেলা ১টার দিকে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে একে প্রেস ব্রিফিংয়ে একথা বলেন হানিফ।

হানিফ বলেন, নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা মাধ্যমে জনগণের মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি করে আন্দোলনের একটি ইস্যু তৈরির জন্যই খালেদা এ কাজ করেছেন।

তারা যে অভিযোগ করছে, এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি। ভোট শান্তিপূর্ণভাবে চলছে উল্লেখ করে হানিফ ঢাকা উত্তর, দক্ষিণ ও চট্টগ্রাম সিটির শান্তিপূর্ণভাবেই ভোট দিয়ে যাওয়ার আহবান জানান।

এর আগে বেলা সোয়া বারটার দিকে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। দলের নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে ভোট বর্জনের এ ঘোষণা দেন মওদুদ।

দলটির ইলেকশন মনিটরিং টিমের সদস্যরাসহ উত্তরের মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল ও দক্ষিণের মেয়র প্রার্থী মির্জা আব্বাসের স্ত্রী আফরোজা আব্বাস ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন।

অন্যদিকে বেলা সোয়া ১১টায় কেন্দ্র দখল, কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগ এনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোট বর্জন করেন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী এম মনজুর আলমও।  নগরীর দেওয়ানহাট উন্নয়ন আন্দোলনের নির্বাচনী কার‌্যালয়ে তিনি এ ঘোষণা দেন। রাজনীতি থেকে অবসরেরও ঘোষণা দেন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মনজুর আলম।