সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মনোনীত প্রার্থীদের নিশ্চিত পরাজয় জেনেই বিএনপি নির্বাচন বর্জন করেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র প্রার্থী আনিসুল হকের নির্বাচনী সমন্বয়ক কর্নেল (অব.) ফারুক খান।

একই সঙ্গে অনিয়ম, কারচুপি ও এজেন্টদের বের করে দেওয়ার অভিযোগকে ‘ডাহা’ মিথ্যা বলেও দাবি করেন তিনি।

মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে বিএনপির নির্বাচন বর্জনের ঘোষণার পর প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে মুঠোফোনে বাংলানিউজকে কর্নেল (অব.) ফারুক খান এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘আমি খোঁজ নিয়েছি, নির্বাচন সুষ্ঠু ও সুশৃঙ্খলভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এমনকি বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী তাবিথ আওয়ালও সকালে ভোট দিয়ে সাংবাদিকদের  বলেছেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হচ্ছে। যা আমি টেলিভিশনে দেখিছি।’

ভোট কেন্দ্রে বিএনপি মনোনীত প্রার্থীদের এজেন্ট প্রবেশে বাধা দেওয়ার অভিযোগ প্রসেঙ্গে কর্নেল (অব.) ফারুক খান বলেন, এটা ডাহা মিথ্যাচার।

‘তারা (বিএনপি) যে অভিযোগ করেছেন-কেন্দ্রে কোনো এজেন্ট ঢুকতে দেওয়া হয়নি, কিন্তু সকালে কী তাদের কাছে এ খবর ছিল না? অবশ্যই ছিল। আর ছিল বলেই ভোট দিয়ে তাবিথ আওয়াল বলেছিলেন-নির্বাচন সুষ্ঠু হচ্ছে,’ যোগ করেন তিনি।

আওয়ামী লীগের এ‌ নেতা বলেন, আসলে গত তিনমাস ধরে আন্দোলনের নামে বিএনপি সহিংসতা চালিয়ে মানুষ হত্যা করেছে। এ কারণে মানুষ তাদের ভোট দেবে না এরইমধ্যে তা আঁচ করতে পেরেছেন তারা। আর এজন্যই নির্বাচন বর্জন করেছেন।

‘ভোটের মাধ্যমে মানুষ তাদের (বিএনপি) সহিংসতার উপযুক্ত জবাব দেবে, তারা নির্বাচনে পরাজিত হবে,’ বলেও উল্লেখ করেন কর্নেল (অব.) ফারুক খান।

ভোটগ্রহণ শেষে বিকালে সংবাদ সম্মেলন করে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী আনিসুল হকের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানানো হবে বলেও জানান তিনি।

মঙ্গলবার সকাল ৮টায় ভোট শুরুর পর কেন্দ্র দখল এবং বিভিন্ন কেন্দ্রে এজেন্ট প্রবেশে বাধা দেওয়ার অভিযোগ করে বিএনপি। এরপর দুপুরে প্রথমে চট্টগ্রাম এবং এর কিছুক্ষণের মধ্যে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণেও নির্বাচন প্রত্যাখ্যান ও বর্জনের ঘোষণা দেয় বিএনপি। যদিও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ তা অস্বীকার করে আসছে।