নতুন উদ্ভাবন ও গবেষণাকাজের জন্য তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ (আইসিটি) সব ধরনের সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। রবিববার সকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে আইসিটি সম্মেলন কেন্দ্রে আইসিটি খাতে গবেষণার জন্য বৃত্তি ও উদ্ভাবনীকাজের জন্য অনুদান প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ সব কথা বলেন।
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘যাদের মেধা ও উদ্ভাবনী শক্তি আছে, তাদের সঠিক মূল্যায়ন করা হবে। যদি কেউ নতুন কিছু উদ্ভাবন এবং গবেষণার জন্য নতুন কোনো ধারণা বা তথ্য দিয়ে কাজ করতে চান, সে ক্ষেত্রে আইসিটি বিভাগ আর্থিকসহ সব ধরনের সহযোগিতা দেবে।’
জুনাইদ আহমেদ বলেন, ‘যোগ্য গবেষকদের গবেষণাপ্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে। মেধাবীদের প্রণোদনা দিয়ে তাদের কার্যক্রমের ফলাফল দেশের স্বার্থে কাজে লাগানো হবে। শিক্ষা, চিকিত্সা, প্রযুক্তি সব বিষয়ে সহযোগিতা করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই সরকারের প্রধান কাজ।’
প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা তথ্যপ্রযুক্তি ও মেধার দিক দিয়ে পিছিয়ে আছি। এই প্রাচীন ধারণা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। কেননা এরই মধ্যে ধারণাকে ভুল প্রমাণিত করে দেশের তরুণ থেকে শুরু করে সব বয়সী মেধাবীরা প্রযুক্তিসহ প্রতিটি বিভাগেই দক্ষতা ও মেধার প্রমাণ দিয়েছেন।’ প্রতিবছর একজনকে হাইপ্রোফাইল আইসিটি ফেলোশিপ প্রদান এবং প্রযুক্তি-নির্ভর বিশ্ববিদ্যালয়গুলো পরিদর্শনসহ বিভিন্ন পরিকল্পনার কথাও জানান পলক।
অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ২৮ লাখ ৯০ হাজার টাকা বৃত্তি এবং নয়টি প্রকল্পে ৩৭ লাখ ২৩ হাজার টাকা অনুদান দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আইসিটি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব হারুনুর রশীদ, সুশান্ত কুমার সাহা, মহাপরিচালক জসীম উদ্দিন আহমেদ, বৃত্তি ও অনুদান অধিশাখার উপসচিব ড. বিকর্ণ কুমার ঘোষ, বাংলাদেশ হাইটেক পার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম প্রমুখ।