দেশবিরোধী চুক্তি করে রক্ষা পাবেন না শেখ হাসিনা- খালেদা জিয়া

0
528

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, দেশবিরোধী চুক্তি করে অতীতে কেউ রক্ষা পায়নি। শেখ হাসিনাও পাবেন না।

তার অভিযোগ, শেখ হাসিনা দেশের কিছুই রাখেননি। ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য সব কিছু বিক্রি করে দিয়েছেন।

ছাত্রদলের নিহত যুগ্ম-আহ্বায়ক নুর আলম নুরুর পরিবারের সদস্যরা শনিবার রাতে গুলশান কার্যালয়ে দেখা করতে আসলে খালেদা জিয়া এসব কথা বলেন।

নুরুর পরিবারের সদস্যদের মধ্যে ছিলেন তার স্ত্রী সুমি আক্তার, মেয়ে উম্মে হাবিবা মীম, ছেলে নাইমুল আলম, জোবায়ের আলম, মা মনোয়ারা বেগম ও শাশুড়ী জাহানারা বেগম।

খালেদা জিয়াকে পাশে পেয়ে নুরুর পরিবারের সদস্যরা কান্নায় ভেঙে পড়েন। এ সময় বিএনপি চেয়ারপারসনকেও চোখের পানি মুছতে দেখা যায়। পরে তিনি নুরুর পরিবারকে আর্থিক অনুদান তুলে দেন।

গত ২৮ মার্চ রাতে ছাত্রদল নেতা নুরুকে পুলিশ পরিচয় দিয়ে আটক করে নিয়ে যায় সাদা পোশাকের ৮/১০ জনের একটি দল। পরদিন বিকালে জেলার রাউজানের বাঘোয়ান এলাকা থেকে পুলিশ তার হাত-পা-চোখ বাঁধা ও মাথায় গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করে।

নুরুর নিহত হওয়া প্রসঙ্গে খালেদা জিয়া বলেন, সরকারের সন্ত্রাসীরা নুরুকে শুধু মেরেই ক্ষান্ত হয়নি, ওরা বহু মানুষকে গুম করেছে, খুন করেছে। র‌্যাব-পুলিশ দিয়ে মানুষ হত্যা করছে। কারো জীবনের নিরাপত্তা নেই।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার হাত রক্তে রঞ্জিত। শেখ হাসিনার বিচার এদেশের মাটিতে জনগণ করবে।

বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, নুরুসহ যারা স্বৈরাচারী সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে গিয়ে গুম-খুন হয়েছেন তাদের পরিবারকে জাতীয়তাবাদী শক্তি সহযোগিতা করবে। তাদের পরিবারের সন্তানদের লেখাপড়াসহ যাবতীয় খরচ বহন করবে বিএনপি।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী নন, বর্তমান ভোটারবিহীন সরকার জনগণের সরকার নয়। এরা খুনি। বিশেষ পরিকল্পনা থেকেই প্রতিবাদী শিক্ষিত তরুণদের ধরেই গুম-খুন করা হচ্ছে। তাদের রক্ত বৃথা যাবে না। এর জবাব শেখ হাসিনাকে দুনিয়াতে এবং আখিরাতে দিতেই হবে।

এ সময় বিএনপি নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) রুহুল আলম চৌধুরী, মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দীন শামসুজ্জামান দুদু, গিয়াস কাদের চৌধুরী, বিশেষ সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন-নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শামীম, সহ-স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. ফরহাদ হোসেন ডোনার, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাৎ হোসেন।

এছাড়া যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহ উদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, ছাত্রদলের সভাপতি রাজিব আহসান, সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান মিন্টু, বিএনপি নেতা ওয়াদুদ ভূইয়া, যুবদল নেতা মামুন হাসান, এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।