বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বাংলাদেশে জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি করার কোনো অধিকার নেই। নিশ্চয়ই এমন একদিন আসবে যেদিন এদেশে জামায়াত-শিবির থাকবে না।

তিনি বলেন, শহীদ জননী জাহানারা ইমাম যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের পথ দেখিয়ে গিয়েছেন। তার পথ ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের প্রক্রিয়া শুরু করে তা বাস্তবায়ন করছেন। পর্যায়ক্রমে সকল মানতাবিরোধী অপরাধীদের বিচারের রায় কার্যকর করা হবে।

তিনি আজ শহীদ জননী জাহানারা ইমামের ৮৬তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ধানমন্ডির ডব্লিউবিএ অডিটরিয়ামে একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটি আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করছিলেন।

নির্মূল কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী মুকুলের সঞ্চালনায় ও সহ-সভাপতি শহীদ জায়া শ্যামলী নাসরিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে ‘নববর্ষে নারী নির্যাতন ও সিটি নির্বাচন, বাংলাদেশ কোন পথে’ শীর্ষক এই আলোচনা সভায় আরো বক্তৃতা করেন কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহরিয়ার কবির, সহ-সভাপতি অধ্যাপক মুনতাসির মামুন, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সদস্য এরোমা দত্ত, নারী নেত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা রোকেয়া কবীর ও এডভোকেট মঞ্জিল মোর্শেদ।

বিএনপিকে আগামী ২০১৯ সালের নির্বাচন পর্যন্ত চুপচাপ থাকার পরামর্শ দিয়ে তোফায়েল আহমেদ বলেন, বলেন, ২০১৯ সালে বর্তমান সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে, ওই নির্বাচন পর্যন্ত তাদের অপেক্ষা করতে হবে। আর যদি আবারো জ্বালাও পোড়াও আর পেট্রোল বোমার রাজনীতি অব্যাহত রাখে, তবে তা হবে তাদের আত্মহত্যার শামিল।

অতীতে আওয়ামী লীগ গণআন্দোলনের মাধ্যমে অনেক স্বৈরাচার সরকারের পতন ঘটিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সংগ্রাম ও আন্দোলনের মাধ্যমেই একমাত্র একটি সরকারের পতন ঘটানো সম্ভব, সন্ত্রাস করে তা কখনো সম্ভব নয়। বিগত ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনকে ঘিরে এবং গত তিন মাসব্যাপী বিএনপি-জামায়াত দেশে ধ্বংসলীলা চালিয়েও সরকারের কিছু করতে পারেনি। তারা ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে।

বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে উল্লেখ করে তোফায়েল আহমেদ বলেন, শূন্য হাতে যাত্রা শুরু করে বাংলাদেশ এখন অনেক সমৃদ্ধশালী। সামাজিক-অর্থনৈতিক সকল ক্ষেত্রে বাংলাদেশ পাকিস্তান থেকে অনেক এগিয়ে রয়েছে।

বিএনপি’র তিন সিটি নির্বাচন বয়কট প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নির্দলীয়, এখানে বয়কট করতে হলে প্রার্থীকেই করতে হবে। কিন্তু এখানে দেখা গেছে প্রার্থীরা বয়কট করেনিÑ বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদ নির্বাচন বয়কট করেছেন।

তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত সুপরিকল্পিতভাবে নির্বাচন বয়কটের ঘটনাটি সাজিয়েছে। বিএনপি নেতা নজরুল ইসলাম খানের সাথে মাঠ পর্যায়ের এক কর্মীর কথোপকথনই তার প্রমাণ।