হজরত মুহম্মদ (সা.)-এর ব্যঙ্গচিত্র একে বিশ্বজুড়ে বিতর্কের ঝড় তোলা শার্লি এবদোর সেই কার্টুনিস্ট রেন্যাল্ড লুজিয়ের (লুজ)  জানিয়েছেন, তিনি ওই প্রকাশনা সংস্থাটিতে আর কাজ করবেন না। সহকার্মীদের মৃত্যুর পর মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন তিনি।
বিবিসি অনলাইনের এক খবরে মঙ্গলবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।
ফরাসী গণমাধ্যম লিবারেশনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে লুজ বলেছেন, চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে তিনি চাকরিটা ছেড়ে দেবেন।
এক প্রতিবেদনে মঙ্গলবার এ খবর দিয়েছে বিবিসি।
লুজ বলেছেন, প্যারিস হামলায় সহকর্মীদের প্রাণহানির পর তার ওপর বেশ চাপ বেড়েছে। এত চাপ সামলাতে কষ্ট হচ্ছে বলেই তিনি শার্লি এবদো ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।
এর আগে গত মাসে লুজ জানিয়েছিলেন, ইসলাম বিশ্বের নবী মুহাম্মদকে (সা.) নিয়ে কার্টুন আঁকবেন না তিনি আর।
লুজ বলেছিলেন, ‘আমি আর মুহাম্মদের চেহারা আঁকব না। এ নিয়ে আমার আর কোনো আগ্রহ নেই।’
শার্লি এবদোর জানুয়ারি ২০১৫-এর এক সংখ্যায় প্রচ্ছদ এঁকেছিলেন লুজ। প্রচ্ছদ কার্টুনের চরিত্র ছিলেন মুহাম্মদ (সা.)। সেই কার্টুনের ওপর লেখা ছিল ‘অল ইজ ফরগিভেন’। আর তার নিচে লেখা ছিল ‘জো সুই শার্লি’।
এর আগে ৭ জানুয়ারি, প্যারিসে শার্লি এবদোর কার্যালয়ে সশস্ত্র হামলা চালায় জিহাদীরা। এতে অন্তত ১২ জন নিহত হন।
এরপর লুজের আঁকা প্রচ্ছদের ওই সংখ্যাটির আশি লক্ষ কপি ছাপা হয়, যেটা ফরাসী সংবাদমাধ্যমের ইতিহাসে একটা রেকর্ড।
কিন্তু সহকর্মীরা নিহত হওয়ার বিষয়টা এখনও মেনে নিতে পারছেন না ‍লুজ।
তিনি বলেছেন, ‘তারা চলে যাওয়ার পর প্রতিটা ইস্যুই মনে হয় যেন এক একটা নির্যাতন।’
লুজ বলেন, ‘চার্ব, চাবু, অঁরে, তিগনুস—ওদের মৃত্যু এখনও প্রতি রাতে আমাকে নির্ঘুম রাখে।’
প্রসঙ্গত, ১৯৯২ সালে শার্লি এবদোতে যোগ দিয়েছিলেন কার্টুনিস্ট লুজ।