সিটি নির্বাচন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচ টি ইমামের মন্তব্যের ব্যাপারে খোঁজ নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপ-মুখপাত্র জেফ রাথকে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানিয়েছেন।

মন্ত্রণালয়ের ব্রিফিংয়ে জেফ রাথকে-কে এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন : আমি এ মুহূর্তে বাংলাদেশ নিয়ে কথা বলতে চাই। প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত বার্নিকাটের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন। তিনি সম্প্রতি সিটি নির্বাচনে বিঘ্ন বা সমস্যা সৃষ্টি করেছেন।

এর জবাবে রাথকে বলেন : কী জন্য? কী জন্য? দুঃখিত, আমি সেটা শুনিনি। কী জন্য?

এর পর ওই প্রশ্নকারী সাংবাদিক আরো বলেন : বাংলাদেশের তিনটি সিটি নির্বাচনের ব্যাপারে।

এর পর ওই সাংবাদিক আরো বলেন : প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম মার্কিন রাষ্ট্রদূত বার্নিকাটের বিরুদ্ধে সিটি নির্বাচনে সমস্যা করার অভিযোগ এনেছেন। তিনি এ বিষয়ে দূতাবাস কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধেও অভিযোগ এনেছেন। এ ব্যাপারে আপনার মন্তব্য কী?

রাথকে : আচ্ছা, এসব মন্তব্য দেখিনি। এ ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে আপনাকে একটি মন্তব্য করতে পারলে আমি খুশি হবো।

প্রশ্নকারী : ধন্যবাদ।

রাথকে : তবে আমি সেগুলো (মন্তব্য) দেখিনি, সুতরাং এ ব্যাপারে জবাব দেওয়ার আগে আমি সেগুলো দেখতে চাই।

গত ২ মে একটি টেলিভিশনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এইচ টি ইমাম করে বলেন, ভোট গ্রহণের সময় মার্শা স্টিফেনস ব্লুম বার্নিকাট বিঘ্ন ঘটিয়েছেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের আন্ডার সেক্রেটারি ওয়েন্ডি শারম্যান ও বার্নিকাটের সমালোচনা করে আরো বলেন, সিটি নির্বাচন নিয়ে কথা বলার আগে আয়নায় নিজের চেহারা দেখা উচিত।

গত ২৮ এপ্রিল সিটি নির্বাচনে ভোটকেন্দ্র পরিদর্শনে যান বার্নিকাট। এ সময় তিনি তাঁর টুইটার বার্তায় নির্বাচন নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেন।