ইরান রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতাল নির্মাণে আগ্রহী

0
138

বাংলাদেশ ও ইরানের মধ্যে একটি চিকিৎসা শিক্ষা সহযোগিতা বিষয়ক সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের জন্যেও দেশটি আগ্রহ দেখিয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার বাংলাদেশে নিযুক্ত ইরানের রাষ্ট্রদূত ড. আব্বাস ভায়েজি সচিবালয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের সাথে সাক্ষাত করতে এসে এ আগ্রহের কথা জানান।

রাষ্ট্রদূত দুই দেশের মাঝে বিদ্যমান দীর্ঘদিনের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কথা তুলে ধরে বলেন,স্বাস্থ্যখাতে দুই দেশ অতীতে একসাথে কাজ করেছে। বাংলাদেশ থেকে পূর্বে ইরানে নিয়মিত চিকিৎসক যেত, এমনকি তেহরান বিশ্ববিদ্যালয় থেকেও অনেক বাংলাদেশী উচ্চতর ডিগ্রী লাভ করেছে। তিনি বাংলাদেশ থেকে ইরানে নিয়মিত চিকিৎসক ও নার্স নেয়ার প্রক্রিয়া শুরু করার জন্য মোহাম্মদ নাসিমকে অনুরোধ জানিয়ে বলেন, প্রয়োজনে ইরান থেকেও চিকিৎসক এবং বিশেষজ্ঞ বাংলাদেশে চিকিৎসা দিতে পাঠানো যেতে পারে। এতে দুই দেশই লাভবান হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বাংলাদেশ ও ইরানের একই ধর্মীয় সংস্কৃতির কথা উল্লেখ করে বলেন, ইরানের সমৃদ্ধ ইতিহাস ও ঐতিহ্যের প্রতি বাংলাদেশের জনগণের শ্রদ্ধা ও আগ্রহ আছে। এই দুই দেশ একত্রে কাজ করলে দুই দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নতি ত্বরান্বিত হবে। বাংলাদেশের ঔষধের আন্তর্জাতিক মানের গুণগত দিক তুলে ধরে তিনি বলেন, বাংলাদেশ বর্তমানে বিশ্বের ১০০টিরও বেশি দেশে ঔষধ রপ্তানী করছে। ইরান বাংলাদেশ থেকে ঔষধ আমদানী করলে সাশ্রয়ী মূল্যে বিশ্বমানসম্মত ঔষধ পেতে পারে। ইরানের রাষ্ট্রদূত মন্ত্রীর এই প্রস্তাব সক্রিয়ভাবে বিবেচনা করার আশ্বাস প্রদান করে বাংলাদেশের কয়েকটি ঔষধ শিল্প প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনের আগ্রহ প্রকাশ করেন।

অপর দিকে রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশে মেডিকেল কলেজগুলোতে আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে আরো অধিক ছাত্র ভর্তির সুযোগ প্রদানে মন্ত্রীর সদয় বিবেচনা কামনা করেন। তিনি জানান, বাংলাদেশ থেকে সর্বাধিক পরিমান পাট আমদানী করে ইরান। বর্তমানে তারা বাংলাদেশের গার্মেন্টস ও ঔষধ আমদানীতে আগ্রহ দেখাতে চায়। রাষ্ট্রদূত স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে ইরান সফরের আমন্ত্রণ জানালে মন্ত্রী সাদরে তা গ্রহণ করেন। রাষ্ট্রদূত শীঘ্রই আনুষ্ঠানিক আমন্ত্রণ পাঠানো হবে বলে এসময় জানান।