কাজী রকিবউদ্দীন আহমদের নেতৃত্বাধীন নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠন হিসেবে অভিহিত করেছেন ২০ দলীয় জোটের অন্যতম নেতা ও এলডিপি চেয়ারম্যান কর্ণেল (অব) অলি আহম্মেদ বীর বিক্রম।

রোববার সকালে নগরীর একটি রেস্টুরেন্টে বিএনপির সমর্থিত মনজুর আলমের পক্ষ থেকে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

অলি আহম্মেদ বলেন, ‘আমারা গণতন্ত্রকে পুন:প্রতিষ্ঠিত করতে আন্দোলনের অংশ হিসেবে এই সিটি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। শুরু থেকেই অসম ও বৈষম্যমূলক এই নির্বাচনী মাঠে আমারা নির্বাচনী কাজ চালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি। কিন্তু সরকার ও তাদের দলের নেতাকর্মীদের বাধার মুখে পড়তে হচ্ছে বারবার। এরপরও নির্বাচন কমিশন কোন ব্যবস্থা নিচ্ছেনা। নির্বাচন কমিশন সরকারী দলের ইচ্ছায় নিয়ম ভেঙ্গে ২ দিন আগে পোলিং এজেন্টের নাম ঠিকানা চেয়েছে। তারা যেন নির্বাচনে কাজ করতে না পারে সেজন্য তাদের গ্রেপ্তার ও হয়রানি করাই মূল উদ্দেশ্য।’

তিনি বলেন, ‘সরকারী দলের প্রার্থীর পক্ষে ভোট কেনার জন্য গত তিন ধরে নগরীর বস্তিগুলোতে বিরানীর প্যাকেট বিতরণ করা হচ্ছে। টাকা বিলি করা হচ্ছে।  কিন্তু নির্বাচন কমিশন সেদিকে কোন খেয়ালই করছেনা। দেশে এখন কোন আইন নেই। এটা মগের মুল্লুক। এখানে ক্ষমতা যার তার কথাই হচ্ছে আইন। একারণে নির্বাচন কমিশন এখন আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনে পরিণত হয়েছে।’

সাবেক এ মন্ত্রী বলেন, ‘আমি কমিশনকে বলতে চাই, ক্ষমতা কারো জন্য চিরস্থায়ী নয়। সকাল হলে বিকেল হবেই। হয়তো আগামী এক বছরের মধ্যেই এই সরকারের পরিবর্তন হতে পারে।’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বিএনপির কেন্দ্রিয় সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আকবর খোন্দাকার, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ ওয়াহিদুল আলম, কেন্দ্রিয় সদস্য মাহবুবুর রহমান শামীম, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি জাফরুল ইসলাম, নগর বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী।