আয়ারল্যান্ডের প্রথম সমকামী প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন ক্ষমতাসীন জোটের ফাইন গোয়েল দলের নতুন প্রধান লিও ভারাদকার।

গত শুক্রবার ৩৮ বছর বয়সী ভারাদকার তার দলের গৃহায়ণ মন্ত্রী সাইমন কভেনিকে ৬০ ভাগ ভোটে পরাজিত করে দলের প্রধান নির্বাচিত হয়েছেন।
চলতি মাসের শেষে সংসদ অধিবেশনে তিনি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করবেন। ভারাদকার একই সঙ্গে আয়ারল্যান্ডে সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন।
ভারাদকার ভারতীয় বংশোদ্ভুত আয়ার‌ল্যান্ডের নাগরিক। তার পিতা ছিলেন একজন ভারতীয় ডাক্তার। তিনি কাজের সন্ধানে আয়ারল্যান্ডে গিয়ে যান। সেখানেই বিয়ে করে ঘর বাধেন ভারাদকারের পিতা। মা একজন আইরিশ নার্স।
বিজয়ী হবার পর ভারাদকার বলেন, যখন আমার পিতা ৫ হাজার মাইল পথ অতিক্রম করে আয়ার‌ল্যান্ডে বসতি স্থাপন করেছিল তখন তিনি হয় চিন্তা করেননি যে, তার সন্তান আয়ার‌ল্যান্ডের নেতা হিসেবে বেড়ে উঠবে। এতে প্রমাণ হয় আয়ার‌ল্যান্ডে কোনো কুসংস্কারের স্থান নেই।
ভারাদকার দলের প্রধান এন্ডা কেনির ইস্তফা দেয়ার প্রেক্ষিতে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন। এন্ডা কেনি বিগত ১৫ বছর ওই দায়িত্বে ছিলেন। তিনি ২০১১ সালে আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী হন। আর ভারাদকার বর্তমানে সেখানকার সামাজিক সুরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্বে রয়েছেন।
ভারাদকার ফাইন গোয়েলের প্রধান নির্বাচিত হওয়ায় যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে চিঠি দিয়ে অভিনন্দন জানিয়েছেন। এছাড়া নর্দান আয়ারল্যান্ডের ফার্স্ট মিনিস্টার আরলেম ফস্টারসহ অনেকেই তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
ভারাদকারের বিজয়ের পেছনে তার অতীত ইতিহাস এবং যৌন জীবনের বিষয়গুলো বেশি গুরুত্ব পেয়েছে বলে গণমাধ্যমে বলা হচ্ছে। ২০১৫ সালে আয়ার‌ল্যান্ডে সমকামী বিয়ে নিয়ে অনুষ্ঠিত গণভোটের সময় ভারাদকারের সমকামিতার খবর প্রকাশ পায়। ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত সেখানে সমকামিতা ছিল আইনত অবৈধ।