আর্জেন্টিনার সীমান্ত-কর্তৃপক্ষ দাবি করেছে, অবৈধ পথে সীমান্ত অতিক্রম করে প্রবেশের সময় প্যারাগুয়ের দুই নাগরিককে আটক করেছে তারা। তাদের কাছে উনিশ শতকের কাগজে মোড়া স্বর্ণের বার পাওয়া গেছে।

স্বর্ণের বারের মূল্যমান আন্তর্জাতিক বাজারে প্রায় ২০ লাখ মার্কিন ডলার; প্রায় সাড়ে ১৫ কোটি টাকার সমান। বারগুলোয় সেন্ট্রাল ব্যাংক অব প্যারাগুয়ে ১৮২৪ লেখা কাগজ সাঁটা। আটকদের দাবি- তারা এগুলোর বৈধ দাবিদার। ধারণা করা হচ্ছে স্বর্ণের এ বারগুলো ১৮৬৪ থেকে ১৮৭০ অব্দি চলমান লাতিন যুদ্ধে কোনো ধনী পরিবারের সংগ্রহে ছিল, যা পরে লুকিয়ে ফেলা হয়। সে সময়ে প্যারাগুয়ের বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল-উরুগুয়ে জোট লড়েছিল।

আটক দুই ব্যক্তির একজন জিজ্ঞাসাবাদে জানান, এক আদিবাসী সম্প্রদায়ের কাছ থেকে তারা এ বারগুলো ৫০,০০০ ডলারে (প্রায় ৩৯ লাখ টাকা) কিনে নিয়েছেন। স্বর্ণের বার ছাড়াও কয়েক কিলোগ্রাম রূপা পাওয়া যায় তাদের সঙ্গে।

প্যারাগুয়ের আর্জেন্টিনা-সীমান্তবর্তী শহর এনকারনাসিওন থেকে আর্জেন্টিনার শহর পোসাদাসে প্রবেশ করার সময় তাদের আটক করা হয়। স্বর্ণের বারগুলোর গাড়ির সিটের ভেতর প্রোথিত ছিল, যা সীমান্তপুলিশের স্ক্যানারে ধরা পড়ে।

লাতিন আমেরিকার দেশগুলো রাজনৈতিক অন্তর্কোন্দল থেকে সৃষ্ট অস্থিতিশীলতার প্রেক্ষাপটে সরকারবিরোধী রাজনৈতিক শক্তি ক্রমশ শক্তিসংগ্রহে ব্রত হচ্ছে। এ বিপুল স্বর্ণের সঙ্গে এর যোগ থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। যদিও এ বিষয়ে পর্যাপ্ত তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করা যায়নি।

১৮৬৪-১৮৭০ সালের যুদ্ধে প্যারাগুয়ে মিত্রশক্তির কাছে পরাজিত হয়েছিল। বিপুল সংখ্যক সেনাক্ষয় হয়েছিল তাদের। বিপুল ভূমি হাতছাড়া হয়েছিল।আটক দুই ব্যক্তি সম্পর্কে প্যারাগুয়েকে অবগত করেছে আর্জেন্টিনা। এর বিপরীতে দেশটির কাছ থেকে এখনও কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।