হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরে সৌদি আরব থেকে ফেরত আসা এক নারী আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে বিমানবন্দরের তিন তলায় টয়লেটে তিনি কীটনাশক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। দ্রুত উদ্ধার করে তাকে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয় তাকে। ঘটনাস্থল থেকে একটি চিরকুট উদ্ধার করা হয়েছে। তার নাম রুনা লায়লা (২৪)।  বাবা মৃত আজাহার আলী ও মা জমিলা খাতুন। তারা সাভারের জিরানিতে থাকেন।
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রুনা লায়লা বলেন, ২০১৬ সালের ১৭ মার্চ সৌদি যাই। ২৮ জুলাই দেশে আসি। সেদিন আমার লাগেজ পাইনি। সেটা খুঁজতে বিমানবন্দরে যাই।  কিন্তু লাগেজটি পাইনি। সৌদিতে এক বাসায় কাজ করে আটমাস বেতন পাইনি। পরে সৌদির বাংলাদেশি অ্যাম্বাসিতে যাই। সেখানে লোকমান নামে এক স্টাফ আমাকে সহযোগিতা করেন। বিয়ের কথা বলে বিভিন্নভাবে আমার সঙ্গে প্রতারণা করেন। লাগেজটি সেখান থেকে বুকিং দেওয়া হলেও বাংলাদেশে এসে পাইনি। লাগেজে প্রায় চার লাখ টাকার মালামাল ছিল। কীটনাশক পান করার আগে লিখেছিলাম- আমার মৃত্যুর জন্য দায়ী লোকমান ও গোলামসহ ৩-৪ জন।
এদিকে, সৌদি আরবের রিয়াদে হিউম্যান রিসোর্স কোম্পানির একটি সেফহোমে ৫০ জন বাংলাদেশি নারী শ্রমিক দেশে ফেরার অপেক্ষায় রয়েছেন। তাদের অভিযোগ, এর আগে যেখানে তারা কাজ করেছেন, সেখানে অনেককেই মালিকের কাছে নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে। এই কোম্পানির জিম্মায় থাকা ৫০ নারী শ্রমিকের মধ্যে ৩৭ জনকে দেশে ফিরিয়ে আনতে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ওয়েজ আর্নার্স বোর্ডে আবেদন করেছে ব্র্যাক। ব্র্যাকের মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের প্রধান শরিফুল হাসান সাংবাদিকদের বলেন, আমাদের কাছে এই ৩৭ জন নারীর পরিবারের পক্ষ থেকে দেশে ফিরিয়ে আনতে সহযোগিতা চেয়ে আবেদন করেছে। আমরা মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়েছি এই ৩৭ জনকে ফিরিয়ে নিয়ে আসার জন্য।