ফ্রাঙ্কফুর্ট বইমেলায় জমজমাট বাংলাদেশ প্যাভেলিয়ান
ফ্রাঙ্কফুর্ট বইমেলায় জমজমাট বাংলাদেশ প্যাভেলিয়ান
ফ্রাঙ্কফুটে বুধবার থেকে শুরু হয়েছে পৃথিবীর বৃহত্তম আন্তর্জাতিক বইমেলা। এই মেলায় অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতি, বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি এবং মিকন গ্রুপ।
জার্মানীতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত ইমতিয়াজ আহমেদ স্বস্ত্রীক বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির স্টল উদ্বোধন করেন এবং অংশ গ্রহণকারী প্রকাশকদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। ছাড়াও তিনি বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির স্টলও পরিদর্শন করেন। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন দূতাবাসের বাাণজ্যিক কাউন্সিলর ড. সৈয়দ মাসুম আহমেদ চৌধুরী।
বাংলাদেশ থেকে যেসব প্রকাশনী অংশ নিচ্ছে তা হচ্ছে- সময় প্রকাশন, পাঞ্জেরী বাংলাপ্রকাশ, কথা প্রকাশ, ইউপিএল, পলল প্রকাশনী এবং নবেল পাবলিশিং হাউজ।
বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সাবেক নির্বাহী পরিচালক কামরুল হাসান শায়ক ইত্তেফাককে জানান, প্রতিটি মেলায় আমাদের অর্জন হচ্ছে। আমরা বাংলাদেশের প্রকাশনা শিল্পকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরছি। ইতোমধ্যে ইন্টারন্যাশনাল পাবলিশার্স এসোসিয়েশন (আইপিএ) এর কংগ্রেসে বাংলাদেশ সদস্য লাভের প্রেক্ষিতে আন্তর্জাতিকভাবে দেশের প্রকাশনা শিল্প বর্হিবিশ্বে মর্যাদা অর্জন করেছে।
কথা প্রকাশের জসীম উদ্দিন জানান, আমাদের বাংলাদেশ প্যাভেলিয়ান খুবই চমৎকার এবং জমজমাট। বাংলা বইমেলা এখন তো লন্ডন, নিউ ইয়র্ক, টরন্টো, মন্ট্রিয়ল, সিডনিতেও ছড়িয়ে পড়ছে। সব বইমেলায় স্থানীয় প্রবাসীরা আমাদের আনন্দের নতুন মাত্রা দিয়েছে এবং দিচ্ছে।
উল্লেখ্য, সর্বশেষ তথ্য মোতাবেক, পাঁচ দিনের এই মেলায় বাংলাদেশসহ ১১০টি দেশের ৭৫০০টি প্রতিষ্ঠান অংশ গ্রহণ করেছে। ফ্রাংকফুর্ট থেকে নূরুল ইসলাম খান বকুল আরো জানিয়েছেন, মেলায় পরে হামিদুল হকের উদ্যোগে ১৪ অক্টোবর শুরু হবে দিনব্যাপী বঙ্গবন্ধু বইমেলা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এছাড়াও শুদ্ধস্বর পত্রিকার সম্পাদক হাবিল বাবুল আয়োজন করবে মেলা উত্তর এক সেমিনার।