নিরাপদ সড়কের দাবিতে সপ্তম দিনের মতো শনিবারও ঢাকার বিভিন্ন সড়কে অবস্থান নিয়ে শিক্ষার্থীরা। তারা গাড়ির কাগজ ও চালকের লাইসেন্স আছে কিনা পরীক্ষা করে দেখছে।  এ ছাড়া যানবাহনের চালক সুশৃঙ্খলভাবে চলাচলের অনুরোধ জানাচ্ছে।
এদিকে শনিবার রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে বিআরটিসির বাস ছাড়া অন্য কোনো বাস চলতে দেখা যাচ্ছে না। অন্যান্য যানবাহন চলাচলও কম রয়েছে।
সকাল সাড়ে ১০টার পর রাজধানীর শান্তিনগর মোড়, ঝিগাতলা মোড়, নিউমার্কেট, আজিমপুর মোড়, ফার্মগেট, কারওয়ান বাজার, মালিবাগ, আসাদগেট মোড়, মিরপুর ১০ নম্বর গোলচত্বরে অবস্থান নিয়েছে। তারা সড়কের চারপাশে বিভিন্ন ভাগে ভাগ হয়ে গাড়ির কাগজপত্র ও গাড়ির লাইসেন্স যাচাই-বাছাইয়ের কাজ শুরু করেছে।
প্রসঙ্গত, দুই বাসের প্রতিযোগিতায় রবিবার কুর্মিটোলায় বাসচাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হয়। এ ঘটনায় আহত হয় আরো বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী। এ ঘটনার প্রতিবাদে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন করে আসছে শিক্ষার্থীরা।
এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাসচাপায় নিহত দুই শিক্ষার্থী দিয়া খানম মীম ও আবদুল করিমের পরিবারকে ২০ লাখ টাকা করে অনুদান দেন। রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে পাঁচটি বাস দেওয়া হয়েছে। শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা সিএমএইচের বিপরীতে কলেজ কর্তৃপক্ষের কাছে বাস পাঁচটি হস্তান্তর করা হয়।