ওয়ানডেতে বাংলাওয়াশের পর একমাত্র টি-টোয়েন্টি ম্যাচেও পাকিস্তানকে পরাজিত করে অপ্রতিরোধ্য বাংলাদেশ। পাকিস্তানের বিপক্ষে খুলনায় বাংলাদেশ কেমন ক্রিকেট খেলে সেটাই এখন দেখার অপেক্ষায় টাইগার ভক্তরা।

তবে এ নিয়ে বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম যা বলেছেন, তা ক্রিকেট ভক্তদের আত্মবিশ্বাসের চূড়ায় নিয়ে যাবে।

মঙ্গলবার খুলনার শহীদ শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামের ম্যাচের আগে সোমবার দুপুরে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে মুশফিকুর রহিম বলেন, আমরা ড্র’য়ের লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামব না। জয়ের লক্ষ্য নিয়েই মাঠে নামবো।

মুশফিক আরও বলেন, ড্রয়ের চিন্তা করে খেললে মাথার মধ্যে রক্ষণাত্মক ভাব চলে আসার ঝুঁকি থাকে। সবকিছুই নির্ভর করে ম্যাচের পরিস্থিতির ওপর। তারপরও আমাদের ম্যাচে নামতে হবে জয়ের লক্ষ্য নিয়ে। জয় ছাড়া ভিন্ন কিছু চিন্তা করার নেই। দলে অনেক ম্যাচ উইনার খেলোয়াড় আছে। এটা আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ, নতুন চ্যালেঞ্জ নেওয়ার জন্য আমরা কেন প্রস্তুত হবো না? আমি মনে করি, জয়ের চিন্তা করাই আমাদের জন্য সঠিক সিদ্ধান্ত হবে।

এসময় তিন বিভাগেই সেরাটা দেয়ার কথা বলেন মুশফিক। তিনি বলেন, ব্যাটে সেরাটা দিতে হবে। বাজে বোলিং করলে তার মাশুল দিতে হবে। আর ফিল্ডিংয়ে অবহেলা করলে চলবে না। আমরা তিন বিভাগেই সমন্বয় করে ভালো করতে চাই।

প্রথম দিনে টেস্টের চিত্রটা কেমন হবে জানতে চাইলে মুশফিক বলেন, খুলনা টেস্টের শেষের দিকে রান করাটা কঠিন হবে। টেস্টের প্রথম সেশনটাতেই সব চিত্র স্পষ্ট বোঝা যাবে। খুলনায় প্রথম দিন ভালো রান পাওয়া যাবে বলে মনে করছি।

প্রতিপক্ষ নিয়ে জানতে চাইলে পাকিস্তানের শক্তিশালী ব্যাটিং স্তম্ভের কথা উল্লেখ করে মুশফিক বলেন, টেস্টে পাকিস্তানের ব্যাটিং লাইনআপ ভালো। আমাদের আরও ভালো করতে হবে। জিততে হলে ২০টি উইকেটই নিতে হবে।

অপরদিকে চলতি সফরের সকল ব্যর্থতাকে পেছনে ফেলে টেস্ট ম্যাচে জয়ের মধ্য দিয়ে খেলায় ফিরতে চায় পাকিস্তান। টেস্ট দলে অভিজ্ঞ খেলোয়াড় যোগ হওয়ায় আত্মবিশ্বাসী পাকিস্তান দল। ফলে খেলোয়াড়রা নিজেদের সেরাটা খেলে ঘুরে দাঁড়াবে বলে জানান পাকিস্তানের অধিনায়ক মিসবাহ উল হক।

সোমবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে মিসবাহ বলেন, আমাদের টেস্ট দলটা খুবই অভিজ্ঞ। বহুদিন ধরেই আমরা ধারাবাহিক পারফর্ম করছি। এটা ভিন্ন ফরমেট। টেস্ট ক্রিকেট নিয়ে খেলোয়াড়দের খুব ভালো ধারণা আছে। সবাই দারুণ ছন্দে রয়েছে। এখানকার কন্ডিশন অনেকটা আবুধাবি-দুবাইয়ের মতোই। আশা করি, এ সংস্করণে আমাদের ফর্ম ধরে রাখতে পারব।

তিনি আরও বলেন, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলাটাই চাপ। এ চাপ সব সময়ই থাকে। অবশ্যই প্রতিপক্ষ দারুণ খেলছে। কাজেই আপনাকে সেরাটা দিতেই হবে। প্রতিপক্ষের ব্যাপারে আমরা সতর্ক আছি। বিশ্বকাপ থেকেই দারুণ খেলেছে বাংলাদেশ।

তিনি আরও যোগ করে বলেন, টেস্টে আমরা সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ভালো করেছি। ফলে আমরা আমাদের শক্তির দিকেই নজর দিচ্ছি। আশা করছি, ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টির চেয়ে টেস্ট ম্যাচ দুটি ভিন্ন হবে।

উল্লেখ্য, দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে মঙ্গলবার পাকিস্তানের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ। খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে খেলা শুরু হবে সকাল ১০টায়।