আয়করমেলায় সর্বমোট ৮ কোটি টাকা
আয়করমেলায় সর্বমোট ৮ কোটি টাকা

বরিশাল নগরের অশ্বিনী কুমার হলে অনুষ্ঠিত সাত দিনব্যাপী আয়করমেলায় সর্বমোট ৮ কোটি টাকা কর আদায় হয়েছে। এ বছর মেলায় গত বছরের থেকে বেড়েছে সেবাগ্রহণকারী করদাতার সংখ্যা। পাশাপাশি বেড়েছে প্রাপ্ত রিটার্ন আদায়কৃত আয়করের পরিমাণ। তবে কমেছে নতুন ই-টিআইএন গ্রহণকারীর সংখ্যা।

জানা যায়, গত বছর থেকে এ বছর ৩২ হাজারের বেশি করদাতা মেলা থেকে সেবাগ্রহণ করেছেন। এ বছর ৭ হাজার ৩৯৭টি রিটার্ন এবং ১ কোটি ৬২ লাখ ৬৪ হাজার ৭০৫ টাকার বেশি কর আদায় হয়েছে।

সোমবার (১৯ নভেম্বর) রাতে বরিশাল কর অঞ্চলের উপ কর কমিশনার (প্রশাসন) মো. আবুল কালাম আজাদ এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। শেষ দিনে পুরোদমে জমে ওঠা মেলায় আয়কর দেওয়ার পাশাপাশি এ সংক্রান্ত নানা বিষয়ে অবহিত হয়েছেন সেবাগ্রহীতারা।

এ বছর মেলার শেষ দিন অর্থাৎ সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত বিভাগীয় শহর বরিশালসহ বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় ১ লাখ ৩৫ হাজার ৮২৯ জন সেবাগ্রহণ করেছেন। পাশাপাশি ১৮ হাজার ৩৬১ জন রিটার্ন জমা দিয়েছেন এবং মেলা থেকে ৮ কোটি ৩২ লাখ ৯৮ হাজার ৮৮৭ টাকার কর আদায় হয়েছে।

অপরদিকে নতুন ‘ই- টিআইএন’ এর মাধ্যমে করদাতা হয়েছেন ৮৬৯ জন। পাশাপাশি এখন পর্যন্ত ১ জন ‘ই- টিআইএন’ রি-রেজিস্ট্রেশন করেছেন।

গতবছর মেলায় বিভাগীয় শহর বরিশালসহ বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় ৬ কোটি ৭০ লাখ ৩৪ হাজার ১৮২ টাকার কর আদায় হয়েছিল। পাশাপাশি রিটার্ন জমা দিয়েছিলেন ১০ হাজার ৯৬৪ জন করদাতা। আর নতুন ‘ই- টিআইএন’ এর মাধ্যমে করদাতা হয়েছিলেন ৯৫১ জন। পাশাপাশি মেলা থেকে ১ লাখ ৩ হাজার ৮০৮ জন সেবাগ্রহণ করেছিলেন।

এবারের আয়করমেলা সম্পর্কে জানতে চাইলে মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, প্রতিদিন মেলায় করদাতাদের উপচেপড়া ভিড় ছিল। তাছাড়া গতবারের চেয়ে এবার আয়কর দাতারাও অনেক সচেতন হয়েছেন।

বরিশালে সাতদিনব্যাপী আয়কর মেলার দিনওয়ারী হিসাব-

গোটা বরিশালে মেলার প্রথম দিনে ৫৫ লাখ ৫৪ হাজার ৩৫৬ টাকা কর আদায় করা হয়েছে। পাশাপাশি রিটার্ন জমা দিয়েছেন ১ হাজার ৩৩৮ জন করদাতা। নতুন ‘ই- টিআইএন’ এর মাধ্যমে করদাতা হয়েছেন ৮৫ জন। সেবাগ্রহণ করেছেন ৩ হাজার ২০৮ জন।

দ্বিতীয় দিনে ৫৯ লাখ ৫৬ হাজার ১৮৭ টাকা কর আদায় হয়েছে। মেলায় রিটার্ন জমা দিয়েছেন ১ হাজার ৩৪৫ জন করদাতা। নতুন ‘ই- টিআইএন’ এর মাধ্যমে করদাতা হয়েছেন ১১৬ জন। সেবা নিয়েছেন ১২ হাজার ৩৪১ জন।

তৃতীয় দিনে ৯৫ লাখ ১৩ হাজার ৪৬৮ টাকা কর আদায় হয়েছে। রিটার্ন জমা দিয়েছেন ২ হাজার ২২৯ জন করদাতা। নতুন ‘ই- টিআইএন’ এর মাধ্যমে করদাতা হয়েছেন ১১৮ জন। সেবাগ্রহণ করেছেন ২৩ হাজার ৮৬৩ জন।

চতুর্থ দিনে ৮০ লাখ ৯ হাজার ৩৭১ টাকা কর আদায় হয়েছে। মেলায় রিটার্ন জমা দিয়েছেন ২ হাজার ৪৪৪ জন করদাতা। নতুন ‘ই- টিআইএন’ এর মাধ্যমে করদাতা হয়েছেন ৫০ জন। সেবাগ্রহণ করেছেন ১৬ হাজার ৪৩৭ জন।

পঞ্চম দিনে ১ কোটি ১৯ লাখ ১৮ হাজার ২৪ টাকা কর আদায় হয়েছে। মেলায় রিটার্ন জমা দিয়েছেন ২ হাজার ৮৮২ জন করদাতা। নতুন ‘ই- টিআইএন’ এর মাধ্যমে করদাতা হয়েছেন ১০৮ জন। সেবাগ্রহণ করেছেন ১৯ হাজার ৪৩৪ জন।

ষষ্ঠ দিনে ১ কোটি ৫০ লাখ ২৩ হাজার ৮৫৫ টাকা কর আদায় হয়েছে। মেলায় রিটার্ন জমা দিয়েছেন ৩ হাজার ৮৪৭ জন করদাতা। নতুন ‘ই- টিআইএন’ এর মাধ্যমে করদাতা হয়েছেন ১৮০ জন। সেবাগ্রহণ করেছেন ২৪ হাজার ৭২৫ জন।

আর সপ্তম দিনে অর্থাৎ মেলার শেষ দিনে সব থেকে বেশি ২ কোটি ৭৩ লাখ ২৩ হাজার ৬২৬ টাকা কর আদায় হয়েছে। মেলায় রিটার্ন জমা দিয়েছেন ৪ হাজার ২৭৬ জন করদাতা। নতুন ‘ই- টিআইএন’ এর মাধ্যমে করদাতা হয়েছেন ২১২ জন। সেবাগ্রহণ করেছেন ৩৫ হাজার ৮২১ জন।

অপরদিকে বিভাগের মধ্যে বরিশাল নগরের অশ্বিনী কুমার হল ভ্যানুতে সর্বোচ্চ ২ কোটি ৩৩ লাখ ৬৬ হাজার ৪৯২ টাকার কর আদায় হয়েছে। এখান থেকে ২৮ হাজার ৮৭০ জন সেবাগ্রহণ করেছেন এবং ২ হাজার ৭২৭টি রিটার্ন জমা পড়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১৩ নভেম্বর (মঙ্গলবার) থেকে বরিশাল অশ্বিনী কুমার হলে শুরু হওয়া সাত দিনব্যাপী এই আয়করমেলা শুরু হয়। যা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত চলে।