সময়ের পালাক্রমে সামাজিক যোগাযোগ মধ্যমের সংখ্যা বাড়ছে। সাধারণত এসব সাইট দেশের বাইরে বিভিন্ন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান তৈরি করে। তবে এবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক-টুইটারের মতো ‘মাইমিটবুকডটকম’ নামের সাইটটি তৈরি করছে বাংলাদেশের মেধাবী তরুন মো. ফারুক।

চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলার পাহাড়তলী ইউনিয়নের শেখপাড়া গ্রামে তাঁর জন্মস্থান।
বর্তমানে তিনি ঢাকায় ব্যবসা করছেন। একই সাথে আউটসোসিং ও ব্লগিং করে থাকেন নিয়মিত। গত কয়েক বছর আগে তিনি ‘অল ইন ওয়ান টুলবার’ নামে একটি টুলবারও তৈরি করেছিলেন যা ব্যবহারকারীদের কাছে বেশ জনপ্রিয়তাও পায়।
স্বপ্নবাজ তরুন মো. ফারুক তিন বছর পূর্বে তার জন্মদিনে ফেইসবুকের মাধ্যমে দাওয়াত দিতে গিয়ে এমন একটি সোশ্যাল সাইট তৈরি করার জণ্য স্বপ্নের বীজ বুনেন। অবশেষে গত ১৫ মার্চ তার জন্মদিনে দীর্ঘ তিন বছর অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে তাঁর লালিত স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দেন। তার গর্ভধারিণীি মাকে উৎসর্গ করার মধ্য দিয়ে আনুষ্টানিকভাবে উদ্বোধন করেন “মাইমিটবুক ডটকম”( http://mym eetbook.co m/). তথ্যপ্রযুক্তির যুগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ছাড়া জীবন কল্পনা করা যায় না। শিক্ষার্থী হতে শিক্ষকরা, সমাজকর্মী হতে কর্মকর্তা, রাজনৈতিক কর্মী হতে নেতা/নেত্রী, লেখক-লেখিকা, পাঠক-পাঠিকা, সংবাদিক হতে সম্পাদক সকলেই সোশ্যাল মিডিয়ার জোয়ারে ভাসছে। ফেইসবুক, টুইটার, গুগোল প্লাস, হোয়াটস অ্যাপ আরো কত কি। সৃষ্টি হচ্ছে নানারকম সমাজিক কর্ম, সহযোগীতা, গড়ে উঠছে বৈচিত্রময় সম্পর্ক, থাকছেনা দূরত্বের বাধা।
মাইমিটবুক সাইটটির প্রতিষ্ঠাতা ওমর ফারুক জানান, সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটটি ফেইসবুকের মতোই ব্যবহার করতে পারবেন আগ্রহীরা। এতে সোশ্যাল জায়ান্টের আদলে রয়েছে স্ট্যাটাস, লাইক ও মন্তব্য করার সুবিধা। শুধু তাই নয়, এর মাধ্যমে ফ্রেন্ডদের সাথে ছবি ও ভিডিও শেয়ার করার পাশাপাশি সর্বোচ্চ ৫০ মেগাবাইটের ফাইলও শেয়ার করা যাবে। যথারীতি পেজ ও প্রোফাইল ভেরিফাইড সুবিধাও এতে জুড়ে দেয়া হয়েছে।

ব্যবহারকারী এখানে গেম খেলতে পারবেন এবং পছন্দের গেম আপলোড দিতে পারবে। পেজ এবং প্রোফাইলকে নিজের মত ডিজাইন করা যাবে। ভিডিও টিউটোরিয়ল সুবিধাও রয়েছে। এছাড়াও ব্যবহারকারী অনন্যা সোশ্যাল আই.ডি দিয়ে লগিন করতে পারবেন (ফেসবুক, টুইটার, গুগলপ্লাস) মাইমিটবুকে আরও আছে যে কোন প্রতিষ্ঠানের পণ্য প্রচারণার ব্যবস্থা। আছে লাইভ চ্যাট ও ম্যাসেজ আদান-প্রদানের ব্যবস্থাও। বাংলা ও ইংরেজি দুইটি ভাষায় এটি ব্যবহার করা যাবে।

মোঃ আহসান হাবীব মিনহাজ ,
রাউজান