ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানের পর তুরস্কে দুই বছর ধরে জারি থাকা জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার করেছে দেশটির সরকার। বুধবার জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার করা হয় বলে জানিয়েছে দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম।

এরদোগান নির্বাচনে জয় লাভ করার কয়েক সপ্তাহ পর জরুরি অবস্থা তুলে নেয়ার ঘোষণা এল।

নির্বাচনের আগে এরদোগানের প্রতিদ্বন্দ্বীরা নির্বাচনে জিতলে জরুরি অবস্থা তুলে নেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।

২০১৬ সালের ১৫ জুলাই তুরস্ক সেনাবাহিনীর একটি অংশ অভ্যুত্থানের চেষ্টা করে। তুরস্কের জনগণ তা ব্যর্থ করে দেয়। এরপর জরুরি অবস্থা জারি করেন প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান।

জরুরি অবস্থা জারি করার পর তার মেয়াদ সাতবার বৃদ্ধি করা হয়। জরুরি অবস্থার কারণে নতুন আইন পাস এবং নাগরিক অধিকার ও ব্যক্তিস্বাধীনতা স্থগিত করার ক্ষেত্রে পার্লামেন্টের ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

বিবিসি জানিয়েছে, জরুরি অবস্থার সময় লাখো মানুষ গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। অনেকেই চাকরি হারিয়েছেন।

বেসরকারি ও সরকারি সূত্র অনুযায়ী, জরুরি অবস্থা জারির পর দেশটিতে ১ লাখ ৭ হাজার মানুষ সরকারি চাকরি হারিয়েছেন এবং ৫০ হাজার লোক জেলে গেছেন, যারা বিচারের অপেক্ষায় রয়েছেন।