নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের পদত্যাগ ও ঘাতক বাসচালকের ফাঁসিসহ ৯ দফা দাবিতে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের উত্তরার আবদুল্লাহপুর থেকে রাজধানীর খিলক্ষেত পর্যন্ত পাঁচ সহস্রাধিক শিক্ষার্থী সড়কে নেমে বিক্ষোভ করছেন। এর পর বেলা ১১টার দিকে বিক্ষোভ মিছিল করে মহাসড়ক অবরোধ করেন। বিক্ষোভে সড়ক আটকে থাকায় চলাচল যেমন থমকে গেছে, তেমনি পথচারী-অফিসমুখী যাত্রীদের ভোগান্তিও বেড়েছে। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার পর থেকে জড়ো হতে শুরু করেন শিক্ষার্থীরা।

আমার ভাই মরল কেন, বিচার চাই বিচার চাই, হাস্যকর মন্ত্রীর পদত্যাগ চাই, আমার সোনার বাংলায় নিরাপদ সড়ক চাই, অপ্রাপ্তবয়স্ক চালককে না বলুন, ইত্যাদি স্লোগানে শিক্ষার্থীরা এলাকা মুখরিত করে রেখেছেন। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বলেন, দাবি না মানা পর্যন্ত আমাদের কর্মসূচি চলবে। উত্তরা জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার কামরুজ্জামান জানান, বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা মাটিতে বসে মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন। মহাসড়কে কোনো যানবাহন চলাচল করছে না। তবে এখনও কোথাও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

জানা গেছে, উত্তরার আবদুল্লাহপুর থেকে রাজধানীর খিলক্ষেত পর্যন্ত ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাঁচ সহস্রাধিক শিক্ষার্থী সড়কে নেমে বিক্ষোভ করছেন। এ কর্মসূচিতে উত্তরা হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ, মাইলস্টোন কলেজ, উত্তরা ইউনিভাসির্টি, এশিয়ান ইউনিভাসিটি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সরকারি স্কুল অ্যান্ড কলেজসহ প্রায় অর্ধশতাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। তবে এখানে কোনো গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেনি।