বিরোধী দলগুলো নির্বাচন থেকে সরিয়ে রাখতে সরকারের দেশে নতুন করে ক্রসফায়ার
বিরোধী দলগুলো নির্বাচন থেকে সরিয়ে রাখতে সরকারের দেশে নতুন করে ক্রসফায়ার

বিরোধী দলগুলো নির্বাচন থেকে সরিয়ে রাখতে সরকার দেশে নতুন করে ক্রসফায়ার, গুম ও মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বৃহস্পতিবার বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নয়াপল্টনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

ফখরুল অভিযোগ করেন, গত কয়েক সপ্তাহ ধরে সারা দেশে নতুন করে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের ব্যাপকহারে গ্রেফতার বেড়েছে। নেতাকর্মীদের মিথ্যা মামলা দিয়ে নির্যাতন করা হচ্ছে। একই সঙ্গে ক্রসফায়ার ও গুমের ঘটনাও বেড়ে গেছে।

‘এ বছর অবাধ নির্বাচনের জন্য যখন সব রাজনৈতিক দলকে সমান সুযোগ দেয়ার প্রয়োজন বেড়ে চলেছে; তখন এ ধরনের ক্রসফায়ার, গুম, খুন, গ্রেফতার, মিথ্যা মামলা, দমন, নির্যাতন সুষ্ঠু নির্বাচনের সম্ভাবনাকে নস্যাৎ করে দিচ্ছে’।

বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে নির্বাচন থেকে দূরে সরিয়ে রাখতে সরকার পরিকল্পিতভাবে এগুলো করছে বলে মনে করেন বিএনপির মহাসচিব। এটি সরকারের চক্রান্ত বলেও অভিযোগ করেন মির্জা ফখরুল।

তিনি অভিযোগ করেন, নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ২৪টি মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে। এ মামলাগুলোর বিচার প্রক্রিয়া নিয়েও প্রশ্ন তুলেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, আদালতে পুলিশ ও র‌্যাবের অবস্থান দেখে মনে হয়, কোনো সামরিক শাসনের অধীনে তাদের আদালতে এই বিচারকার্য চলছে।

‘অল্প কিছু দিনের মধ্যেই খালেদা জিয়াকে জেলে যেতে হবে’-জাতীয় পার্টির নেতাদের এমন বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় ফখরুল বলেন, ‘তা হলে তো খালেদা জিয়ার মামলার রায় পূর্বেই নির্ধারিত। বিচারকাজ শেষ হওয়ার আগেই রায় লিখে রেখেছে সরকার। তবে এই বিচারের প্রহসনের কোনো প্রয়োজন ছিল না। দেশে যে আইনের শাসন নেই, ন্যায়বিচার সুদূর পরাহত সেটিই প্রমাণিত হল।’

‘এই অবৈধ সরকার মিথ্যা মামলা, গ্রেফতার, গুম ও খুনকে ক্ষমতায় টিকে থাকার হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে’, বলেন ফখরুল।