এখন আর মনে হয়না জার্মান কোন কঠিন নিয়মকানুনের দেশ !!!
এখন আর মনে হয়না জার্মান কোন কঠিন নিয়মকানুনের দেশ !!!

জার্মানী হচ্ছে নিময় শৃঙ্খলায় আবৃত উচ্চমাপের বুরুক্রেটিক দেশ। আর আমাদের মত বাংলাদেশ থেকে আসা লাগাম ছাড়া দেশের বাসিন্দাদের জন্য জার্মানী হচ্ছে পুরোই জেলখানা । যেমন ধরি, এই দেশে পাড়া দেয়ার সাথে সাথেই “আনমেল্ডোং এর ঝামেলা” মানে হচ্ছে আপনি বাহিরের দেশ থেকে থাকার জন্য অথবা শিক্ষার জন্যে আসলে আপনাকে সিটি অফিসে রেজিস্টিশন করতে হবে । সাথে থাকতে হবে আপনার আপডেটেড পাসপোর্ট এবং যেই খানে থাকবেন সেই বাসার চুক্তি পত্র । এখানেই কিন্তু শেষ না এই বাসা পরিবর্তনের সময় আপনাকে আবার নিবন্ধন বাতিল ও করতে হবে ।

ট্রাফিক সিগনালের লাল আর সবুজ বাতি কিন্তু ভুললে চলবে না । এখানে সব গাড়ি এবং পথচারী এটা মেনেই পথে চলাচল করে ।

সময়ানুবর্তীটা ও একটা ঝামেলা বলা যায় , সবাই পারলে একটু আগেই আসে । এমন কি বাস , ট্রেইন সহ অন্যান্য সকল লোকাল পরিবহন গুলো । বলুন তো কিভাবে চলি এই দেশে এত্ত এত্ত আজাইরা ভেজাল নিয়ে ????????

রাস্তায় গাড়ি চালানোর সময় কোন অসুস্থ মানুষ দেখলে গাড়ি থামিয়ে তাকে সাহায্য করাও নাকি তাদের নাগরিক কর্তব্য । বলুন দেখি কেমন একটা ঝামেলার দেশ ?????

একবার মোবাইল রেস্তোরায় ফেলে আসলাম সেটা পোস্টে ফিরে আসলো আমার বাসার ঠিকানায় । আরেকবার আমার ক্যামেরার ব্যাগ রাস্তায় কোন একজায়গায় ভুলে ফেলে চলে আসলাম । তারপর সিটি অফিসে খুঁজ নিয়ে দেখি কে যেন এটা পেয়ে এদের কাছে দিয়ে গেছে । পুড়ো একটা পাগল জাতি । গাধা নাকি কেউ এতো দামি ক্যামেরা পেয়ে আর ফেরত দেয় বলুন ?

এখন আসি প্রথমবার পড়াশুনা শেষ করে ৪ বছর পর দেশে আমার বাংলাদেশ বেড়ানোর গল্পে :

যেকোন একটা কাজে আমাকে একাই গাড়ি ছাড়া বের হতে হয়েছিল …রাস্তায় বেড় হলে তো রাস্তা পার হতেই হবে । সিগন্যাল বাতি লাল হলো আমার পা দুটোও অটো ব্রেক মারলো । আমি ছাড়া সবাই রাস্তা পার হল আর আমি সবুজ হওয়ার অপেক্ষায় রইলাম ।

আজ প্রায় ১০ বছর হতে চলল জার্মান প্রবাস “জার্মান বাংলা” জীবনের । তাই এখন আর মনে হয় না জার্মান কোন কঠিন নিয়মকানুনের দেশ !!! তবুও আজও ভালবাসি আমার লাগাম ছাড়া বাংলাদেশ । সপ্ন দেখি সোনার বাংলাদেশ প্রতিক্ষনে ।

চলবে ……

**** আমার জার্মান বাংলার গল্প ভাল লেগে থাকলে শেয়ার করতে ভুলবেন না । আর আপনার কোন গল্প অথবা মতামত থাকলে Email করুন : info@germanbangla.com অথবা মেসেজ করুন আমাদের অফিসিয়াল ফেইছবুক পেইজে www.facebook.com/germanbanglanews

লিখেছেন : আসিফ ইকবাল ভুইয়া