অনুশীলনে ভীষণ হতাশ করছেন ওজিল
অনুশীলনে ভীষণ হতাশ করছেন ওজিল

কাছে চলে এসেছে রাশিয়া বিশ্বকাপ। টানা দ্বিতীয়বার শিরোপা জিতে ইতিহাস লিখতে মরিয়া জার্মানরা। তবে সেই স্বপ্নযাত্রায় কোচ জোয়াকিম লো’কে সন্তুষ্ট করতে পারছেন না মেসুত ওজিল। অনুশীলনে শিষ্যের পারফরম্যান্স দেখে বেজায় চটেছেন তিনি।

ব্রিটিনের বিখ্যাত ট্যাবলয়েড দ্য সান জানাচ্ছে, অনুশীলনে ভীষণ হতাশ করছেন ওজিল। নেপথ্যে তার অমনোযোগ, অবহেলা, ফিটনেস ও অসহযোগিতাকে দায়ী করছেন কর্তৃপক্ষ। অনুশীলনটা নাকি সিরিয়াসলি করছেন না তিনি।

জার্মান সহকারী কোচ থমাস স্নেইডার বলেন, আমরা আর্সেনাল তারকার কাছ থেকে আরও কিছু পেতে চাই। আমরা সবসময় তাকে পর্যবেক্ষণে রাখছি। বিশ্ব মঞ্চে তার সর্বোচ্চটাই পেতে চাই।

দীর্ঘদিন ধরে পিঠের ইনজুরিতে ভুগছেন ওজিল। এখনো নাকি সেই সমস্যা কাটিয়ে উঠতে পারেননি ২৯ বছর বয়সী মিডফিল্ডার। যদি এমনটিই হয়, তাহলে পরিণামে ভুগতে হবে জার্মানদের। কারণ, বিশ্বজয়ের পথে অন্যতম স্বপ্নসারথি তিনি। মাঝমাঠের সেরা সৈনিকও।

এমন খেলোয়াড় বাজে ফর্মে থাকলে লোর মাথা স্বাভাবিকভাবেই ঠিক থাকার কথা নয়। মরার ওপর আবার খাড়ার ঘা হয়ে দেখা দিয়েছে, দলের ফুটবলারদের মধ্যে অন্তঃকোন্দল।

দক্ষিণ ইতালিতে প্রস্তুতি নিচ্ছে জার্মানি। সেখানে অনুশীলনে বল দখলের লড়াইকে কেন্দ্র করে তুমুল বাগবিতণ্ডায় জড়ান জসুয়া কিমিচ ও আন্তোনিও রুদিগার। চেলসি ডিফেন্ডারের কড়া ট্যাকলে মেজাজ হারান বায়ার্ন মিউনিখ তারকা। তেড়ে যান একে অপরের দিকে।

দ্বিতীয় ঘটনা, লেরয় সানের কনুইয়ের আঘাতে আহত হন জুলিয়ান ড্রাক্সলার। মুখে আঘাত লাগায় মাঠেই চিকিৎসা করতে হয় পিএসজির মিডফিল্ডারের।

সব মিলিয়ে চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের অন্দরমহলে ছড়িয়ে পড়েছে অশান্তির কালো মেঘ। তা নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই মাথ্যা ব্যথা শুরু হয়েছে জার্মানদের।